Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৭ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

শিক্ষার গুণগতমানের সঙ্গে কোন আপোষ নয় - প্রেসিডেন্ট

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ মার্চ, ২০১৯, ১২:১৪ পিএম | আপডেট : ৩:০৯ পিএম, ২৯ মার্চ, ২০১৯

প্রেসিডেন্ট মো: আবদুল হামিদ শিক্ষার মানের সঙ্গে কোন আপোষ না করতে এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি ব্যবসা কেন্দ্র হিসাবে ব্যবহার না করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
প্রেসিডেন্ট বলেন, এখন আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ হচ্ছে শিক্ষার গুণগতমান নিশ্চিত করা। ফলে শিক্ষার গুণগত মানের সঙ্গে কোন প্রকার আপোষ করা যাবে না। তিনি গতকাল রাজধানীর বসুন্ধরায় ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (আইইউবি)-র ২০ তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে দেয় ভাষণে একথা বলেন।
বিশ্ববিদ্যালয়টির চ্যান্সেলর আবদুল হামিদ বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে শিক্ষার সবোর্চ্চ স্থান, এটি কোন ব্যবসা কেন্দ্র নয়।
প্রেসিডেন্ট উচ্চ শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, যদি শিক্ষার গুণগত মান নিশ্চিত করা না যায়, তাহলে উচ্চ শিক্ষার হার বৃদ্ধির পাশাপাশি উচ্চ শিক্ষিত বেকারের হারও বৃদ্ধি পাবে।
তিনি সকল প্রকার বাস্তবতা বিবেচনায় রেখে শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষার কারিকুলাম প্রণয়ন এবং জ্ঞান অজর্নের প্রকৃত স্থান হিসাবে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে ও সময়োপযোগী গবেষণা করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।
রাষ্ট্রপতি দেশের ও দেশের জনগণের প্রত্যাশা পূরণে সহায়ক হয়, এমন দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার জন্য অবদান রাখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।
অনুষ্ঠানে দু’জন গ্রাজুয়েট তাদের নিজ নিজ শিক্ষাবর্ষে সর্বোচ্চ ফলাফল অজর্নের জন্য প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে স্বর্ণ পদক গ্রহণ করেন।
প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ সদ্য গ্রাজুয়েটদের স্বাগত জানান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের ভিশনের আলোকে তারা ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্রে পরিণত করতে তাদের মেধা ও সৃজনশীলতাকে কাজে লাগানোর জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, একটি সুখী সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে দেশে দক্ষ জনশক্তি প্রয়োজন।
প্রেসিডেন্ট বর্তমান সরকারের অধীনে উল্লেখযোগ্য উন্নয়নের বর্ণনা দিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ মহাকাশে সফল উৎক্ষেপণের পর বাংলাদেশ আজ অভিজাত স্যাটেলাইট ক্লাবের গর্বিত সদস্য। তিনি বলেন, সরকার বহুমুখী পদ্মাসেতু, বিভিন্ন বিদ্যুৎ প্রকল্প, পায়রা সমুদ্র বন্দর এবং ঢাকা মেট্রোরেলের মতো বিভিন্ন মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।
তিনি বলেন, ধারাবাহিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধিসহ আর্থ-সামাজিক প্রতিটি সূচকে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। উন্নয়নের এ অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ বিশ্বে একটি উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে।
তিনি গ্রাজুয়েটদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে সততা, নিষ্ঠা ও দেশপ্রেমের স্বাক্ষর রাখবে এবং পরিবর্তিত বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় তোমরা হবে আগামী দিনের নেতা।
প্রেসিডেন্ট গ্রাজুয়েটদেরকে সমাজ পরিবর্তনের স্থপতি হিসেবে বর্ণনা করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার সংগ্রামে অংশ নেয়ার পরামর্শ দেন।
প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ তার বক্তব্যের শুরুতেই সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ৭১’র মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী ও দেশের বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে দেশপ্রেমিক শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।
অনুষ্ঠানে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সাঈদ সমাবর্তন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, আইইউবির উপাচার্য অধ্যাপক ওমর রহমান, বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এ মতিন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • Mohammed Kowaj Ali khan ২৯ মার্চ, ২০১৯, ১০:২৫ পিএম says : 0
    BISMILLAHIRRAHMANIRRAHIM Alhadulilahirabbilalamin . সমস্থ প্রশংসা একমাত্র আল্লাহ তা'আলা উপযোগী আল্লাহ তা'আলা সমস্থ বিশ্বের প্রতিপালক। যে যাহাই বিলেন না কেন? যাহার মধ্যে ইসলামের জ্ঞান এবং আমল নাই সে একজন বিরান মানূষ। একমাত্র মুল শিক্ষাই হচ্ছেন ইসলাম। মোসলমান নাম কিন্ত দাঁড়ি নাই মাথায় টুপি নাই। কথায়, কথায় মিত্যা বলে। হারাম খায়। মোসলমান কিন্ত সে ইসলাম নয়। হারাম খাইতে খাইতে মারা ও যায় হাসপাতাল গিয়ে। ও মোসলমান ইসলাম শিক্ষা অর্জন করো আর শান্তিতে থাকো আমল করিয়া। মিত্যার সাগরে ভাসিতেছো কি জবাব দিবায়? এই গরদবের জীবন যখন অবসান হইবে। আসোন আমরা ইসলাম শিক্ষা অর্জন করিয়া আমল করিয়া জীবন করি স্বার্থক। ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রেসিডেন্ট


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ