Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী

ঈশ্বরগঞ্জে বিদ্রোহী সমর্থকদের হামলা মামলায় ২ নৌকা সমর্থক গ্রেফতার

ময়মনসিংহের ১০ উপজেলায় ভোট আজ

ময়মনসিংহ ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৩০ মার্চ, ২০১৯, ৬:১০ পিএম

আজ পঞ্চম উপজেলা পরিষদের চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে ময়মনসিংহের ১০ উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে সব কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম। তবে সদর উপজেলায় ১০০টি ভোট কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হবে। ইভিএম পরিচালনার জন্য সেনাবাহিনীর দুইজন এবং নির্বাচন কমিশন থেকে প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন করে লোক থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কর্মকর্তারা।

সূত্রমতে, ১০টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ২৭জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬৮ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩২ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এতে মোট ভোটার রয়েছেন প্রায় ২৯ লাখ ২০ হাজার। এদিকে হাইকোর্টে রিটের দায়েরের কারণে ত্রিশাল উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত করায় এবং গফরগাঁও উপজেলার সবকটি পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হওয়ার দুটি উপজেলায় ভোট হচ্ছে না।

তবে নির্বাচনী তফসিল ঘোষনার পর থেকে জেলার অন্য উপজেলাগুলোর নির্বাচনী মাঠে বেশ শান্তিপূর্ন অবস্থান বিদ্যমান থাকলেও উত্তাপ ছড়িয়েছে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায়। ইতিমধ্যে নৌকা সমর্থকদের দফায় দফায় হামলার শিকার হয়েছেন একই দলের আনারস প্রতিকে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন দুই নৌকা সমর্থকরা। তারা হলেন- আঠারবাড়ী এলাকার স্বপন ও রবি।

স্থানীয়রা জানায়, ভোটের মাঠে হামলার প্রতিবাদের ঝড় বইছে সচেতন ভোটারদের মাঝে। ফলে ভোটারদের নিরব প্রতিবাদের অনলে আনারস প্রতিক নিয়ে ইতিমধ্যে আলোকিত হয়ে উঠেছেন ক্ষমতাসীন দলের বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুল আলম প্রদীপ। ভোটারদের ভাষ্যমতে, তফসিল ঘোষনার পর থেকে ভালোই ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার নির্বাচনী হাওয়া। কিন্তু নৌকার বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর জনমত জোয়ারে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী ও তাঁর সমর্থকরা। ফলে দফায় দফায় বিক্ষিপ্ত ভাবে তারা হামলা করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের উপর। ফলে এমন সন্ত্রাসী কর্মকার্ন্ডে প্রভাব পড়েছে ভোটের মাঠে। বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন সচেতন ভোটাররা। এখন দেখার পালা আজ রবিবার গোপন ব্যালট বিপ্লবে কি হয় প্রতিবাদের ফসল।

স্বতন্ত্র প্রার্থী বদরুল আলম প্রদীপ বলেন, নৌকার সমর্থকদের হামলায় আমার অনেক কর্মী-সমর্থক আহত হয়েছে। ইনশাল্লাহ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমার বিজয় সুনিশ্চিত।
তবে নৌকা সমর্থকরা বলছেন উল্টো কথা। তাদের ভাষ্যমতে, হামলার অভিযোগ মিথ্যা। মূলত তাদের পক্ষে ভোটার টানতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা ব্লেইম গেইম খেলছেন। তবে নৌকার বিজয়ে আমরা আশাবাদী।
ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আহাম্মেদ কবীর হোসেন বলেন, নির্বাচনী মাঠে হামলার ঘটনায় স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রদীপের ভাই বরকত উল্লাহ সুজন বাদি হয়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলায় স্বপন ও রবি নামের দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে তারা কোন প্রার্থীর সমর্থক তা আমার জানা নেই।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৭১ হাজার। ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৯৬টি। চেয়ারম্যান পদে এ নির্বাচন দুইজন শক্তিমান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এর মধ্যে নৌকা প্রতিক নিয়ে লড়ছেন ক্ষমতাসীন দলের বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন। তার সাথে আনারস প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র ভাবে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য বদরুল আলম প্রদীপ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপজেলা পরিষদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ