Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

মেয়াদোত্তীর্ণ ছাত্রলীগের কমিটির বিলুপ্তি চায় নেতৃত্ব প্রত্যাশীরা

বাকৃবি সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ছাত্রলীগের নেতৃত্ব প্রত্যাশীদের ওপর হামলার ঘটনায় বিচার ও বর্তমান মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির বিলুপ্তিসহ ৪ দফা দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব প্রত্যাশী নেতারা। গতকাল রোববার দুপুর ২ টার দিকে বাকৃবি সাংবাদিক সমিতি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওই দাবি জানান তারা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাকৃবি ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য রাশেদ খান মিলন। তিনি বলেন, গত ২৪ মার্চ বাকৃবি ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রত্যক্ষ মদদে ছাত্রলীগের পরের কমিটির নতুন নেতৃত্ব প্রত্যাশীদের ওপর হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তদন্ত কমিটি গঠন করলেও জড়িতদের বিষয়ে কোনো দৃশ্যমান পদক্ষেপ দেখা যায়নি।
অপরদিকে বর্তমান ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটি অতিরিক্ত ১ বছর ৪ মাস অতিবাহিত করেছে যা গঠনতন্ত্রের সাথে সাংঘর্ষিক। মেয়াদোর্ত্তীণ এ কমিটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মাদক ব্যবসা, সিট বাণিজ্য ও নিয়োগ বাণিজ্য, গেস্টরুমে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের সাথে জড়িত। লিখিত বক্তব্যে তিনি সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও হামলায় জড়িতদের স্থায়ী বহিষ্কার দাবি করেন। অনতিবিলম্বে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা না হলে কঠোর আন্দোলন করার কথাও জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে বাকৃবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মো. আনোয়ারুল হক ও এ এফ এম আনিসুজ্জামান জনি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম তপন, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তায়েফুর রহমান রিয়াদসহ ছাত্রলীগের অন্যান্য নেতৃত্বপ্রত্যাশীরা উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে বাকৃবি ছাত্রলীগের সভাপতি সবুজ কাজী বলেন, ছাত্রলীগের একটি পক্ষ বিভিন্নভাবে ক্যাম্পাসের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্টের পায়তারা করছে। মেয়াদোর্ত্তীণ কমিটির বিষয়ে তিনি বলেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনা পেলে আমরা সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি দেয়ার ব্যবস্থা করব।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. আজহারুল হক বলেন, ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের কোনো ধরনের গ্রæপিং মেনে নেয়া হবে না। ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত সাপেক্ষে হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য গত ২৪ মার্চ রবিবার বিশ^বিদ্যালয়ের কামাল রঞ্জিত মার্কেটে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে প্রাই ৬ জন আহত হয়।

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রলীগ


আরও
আরও পড়ুন