Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

নোয়াখালীর সূবর্ণচরে ফের ভোটকে কেন্দ্রকরে গৃহবধূকে গণধর্ষণ

নোয়াখালী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:৩৩ পিএম

পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনে ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে ভোট করায় প্রতিপক্ষের লোকজন কর্তৃক ছয় সন্তানের জননী (৩৫)কে গণধর্ষণ অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগে গত ৩০ ডিসেম্বর গভীর রাতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীর্ষ প্রতীকে ভোট দেয়ার কারনে চরবাগ্যায় এক মহিলাকে গণধর্ষনের ঘটনায় দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়।

রবিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে নির্যাতিতা ওই নারীকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরআগে ভোট শেষে কেন্দ্র থেকে ফেরার পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার উত্তর বা¹্যা গ্রামের রুহুল আমিনের মৎস্য খামারে এ ঘটনা ঘটে।

চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা নারী অভিযোগ করে বলেন, ৩১ মার্চ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহন চলছিল। তিনি ও তার স্বামী চশমা মার্কা প্রতীকের প্রার্থী তাজ উদ্দিন বাবরের ভোট করেন। ভোট শেষে সন্ধ্যায় তিনি ও তার স্বামী মোটরসাইকেল যোগে নিজেদের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথে তালা মার্কা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থক ইউসুফ মাঝির নেতৃত্বে ১০/১২জন তাদের গতিরোধ করে মারধর করে। এ সময় বেচু মাঝি, বজলু ও আবুল বাসার ওই নারীর স্বামীকে আটকে রেখে তাঁকে পার্শ্ববর্তী রুহুল আমিনের মৎস্য খামারে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। পরে তার স্বামীর চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে।

সোমবার সকালে খবর পেয়ে চরজব্বার থানার ওসি শাহেদ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং হাসপাতালে নির্যাতিতাকে দেখতে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খিষা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দীপক জ্যোতি খিষা বলেন, নির্যাতিতার অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ

২২ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন