Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

মুসলমানরা সন্ত্রাসী নয়, সন্ত্রাসের শিকার- মার্কিন এ্যসেম্বিলতে বাংলাদেশী মুফতি আনসারুল করিম

বিশেষ সংবাদদাতা কক্সবাজার | প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০১৯, ২:৩০ পিএম

দক্ষিণ চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতীর কৃতি সন্তান মুফতি আনসারুল করিম গত ২৭ মার্চ আমেরিকার এ্যসেম্বিলি হাউস ও সিনেট অধিবেশনে পর পর দুই বার বক্তব্য দিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন।

মার্কিন ইতিহাসে এই প্রথম একই দিনে দুইবার মুসলমানদের কোন ধর্মীয় নেতাকে এ্যসেম্বিলি ও সিনেটে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

মুফতি আনসারুল করিম তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশ সহ সারাবিশ্বে মুসলমানদের উপর জুলুম ও নির্যাতনের বর্ণনা তুলে ধরেন। মুসলমান কোন সন্ত্রাসী জাতি বা গোষ্ঠী নয়। তারা সন্ত্রাসের শিকার। কোরান হাদিসের দৃষ্টিতে এর বিশদ বর্ণনা তুলে ধরে তিনি তাক লাগিয়ে দেন।

প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের দেশের লাল সবুজের পতাকা গলায় জড়িয়ে মুফতি আনসারুল করিম দীর্ঘ সময় বক্তৃতা প্রধান করেন। এসময় স্পিকার পাশে দাড়িয়ে মনোযোগ সহকারে তার বক্তব্য শুনেন।

এছাড়া মার্কিন সিনেটে ২৬ মার্চকে বাংলাদেশ ডে ঘোষনা করে রেজুলেশন পাশ করা হয়।
উল্লেখ্য, মুফতি আনসারুল করিম ১৯৭৮ সালে চুনতীর এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা মিয়া মুহাম্মাদ হাছান ও মাতা আমেনা বেগম। প্রথম শ্রেণী থেকে কামিল পর্যন্ত তিনি চুনতি হাকিমিয়া আলিয়া মাদ্রাসায় পড়ালেখা করেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স পাশ করে শিক্ষা উপবৃত্তি নিয়ে মিশর জামেয়া আল আজাহার থেকে গ্রেজুয়েশন ও পরে পোষ্ট গ্রেজুয়েশন সম্পন্ন করেন।
এর পর সাউথ আফ্রিকার ডারবান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম ফিল ডিগ্রি লাভ করেন। বর্তমানে তিনি আমেরিকার হার্ভাড় বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি গবেষণায় আছেন। এছাড়া তিনি বর্তমানে আমেরিকা ভিওিক ইসলামীক সংগঠন ইসলামিক এফায়ার্স আহলে বায়াতের প্রধান হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।



 

Show all comments
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ৩ এপ্রিল, ২০১৯, ৫:৪৯ পিএম says : 1
    বিশ্ব একমাত্র অপরাধের হোতা ইসরাইল। তার একমাত্র মদদ দাতা আমেরিকা। এই ইহুদী কাপের নাস্তিকরা ইসলামধর্মের চিরশক্র। এদের ব্যবপারে মহান আল্লাহ তাহার প্রিয় হাবিব প্রবিত্র কোরআন সুন্নাহ দিগ নির্দেশনা আছে। আমরা সংখ্যা গরিষ্ট মুসলিম দুনিয়া পূজারী ঈমান হারানোর পথে। পূথিবীর কোন সময়ে এত মসজিদ এত মাদ্রাসা এত ঈমাম এত মুসলিম ছিলেন না। আমরা দলে দলে বিবক্ত। পিলিস্তিন ইয়ামেন ইরাক ইরান সিরিয়া আফগানিস্হান কাস্মির মিয়ানমার এই মুসলমানদের কি করুন ভয়াবহ পরিনতি বলার কি প্রয়োজনীয়তা আছে ? যতক্ষন পযর্ন্ত আমরা ঈমানদার হতে পারব না। এক হতে পারবোনা না। আমরা আরও ভয়াবহ অত্যাচারিত হব। এত বেহায়াপনা এত বেপদ্দা নারী এত মিথ্যাচার জেনার প্রতিযোগিতা চলছে। হয়তো আখেরি জমানা। হে আল্লাহ আমরা পদহারা দিশেহারা আমাদের ঈমান ইজ্জত কে তুমি রক্ষা কর।
    Total Reply(0) Reply
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ৩ এপ্রিল, ২০১৯, ৫:৪৯ পিএম says : 1
    বিশ্ব একমাত্র অপরাধের হোতা ইসরাইল। তার একমাত্র মদদ দাতা আমেরিকা। এই ইহুদী কাপের নাস্তিকরা ইসলামধর্মের চিরশক্র। এদের ব্যবপারে মহান আল্লাহ তাহার প্রিয় হাবিব প্রবিত্র কোরআন সুন্নাহ দিগ নির্দেশনা আছে। আমরা সংখ্যা গরিষ্ট মুসলিম দুনিয়া পূজারী ঈমান হারানোর পথে। পূথিবীর কোন সময়ে এত মসজিদ এত মাদ্রাসা এত ঈমাম এত মুসলিম ছিলেন না। আমরা দলে দলে বিবক্ত। পিলিস্তিন ইয়ামেন ইরাক ইরান সিরিয়া আফগানিস্হান কাস্মির মিয়ানমার এই মুসলমানদের কি করুন ভয়াবহ পরিনতি বলার কি প্রয়োজনীয়তা আছে ? যতক্ষন পযর্ন্ত আমরা ঈমানদার হতে পারব না। এক হতে পারবোনা না। আমরা আরও ভয়াবহ অত্যাচারিত হব। এত বেহায়াপনা এত বেপদ্দা নারী এত মিথ্যাচার জেনার প্রতিযোগিতা চলছে। হয়তো আখেরি জমানা। হে আল্লাহ আমরা পদহারা দিশেহারা আমাদের ঈমান ইজ্জত কে তুমি রক্ষা কর।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ