Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের উপর নির্যাতনের ঘটনায় জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি

উপজেলা পরিষদের নির্বাচন চলাকালে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০১৯, ৬:১৪ পিএম

গত ৩১ মার্চ পঞ্চম উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের চতুর্থ ধাপে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন চলাকালে সদর উপজেলার বিভিন্নস্থানে জেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উপর নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের অশোভন আচরণ ও শারীরিকভাবে নির্যাতনের ঘটনায় নির্যাতনকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছে জেলা ছাত্রলীগ। গতকাল বুধবার দুপুর ১টার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভনের নেতৃত্বে জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক মোঃ হায়াত উদ দৌলা খানের কাছে এই স্মারকলিপি প্রদান করেন। স্মারকলিপি গ্রহণ করে জেলা প্রশাসক তদন্তসাপেক্ষে এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে ছাত্রলীগ নেতাদের আশ্বাস দেন।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয়, গত ৩১ মার্চ সকালে সদর উপজেলা পরিষদের ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার পর পরই নির্বাচনী দায়িত্বপালনকারী কর্মকর্তারা বিভিন্ন স্থানে নৌকার সমর্থক ও জেলা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সাথে অশোভন আচরণ করতে থাকে। সকালে সদর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ কামরুজ্জামানের নির্দেশে বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ভোট কেন্দ্রের সামনে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রুবিউল হোসেন রুবেলসহ ১০/১২জনকে পিটিয়ে আহত করে। অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের ভেতর থেকে এএসআই আছহাব নৌকা প্রতীকের দুইজন এজেন্টের বুক থেকে নৌকা প্রতীকের ব্যাজ খুলে ফেলে ও তাদেরকে মারধোর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়। এ ছাড়াও এসিল্যান্ড মোঃ কামরুজ্জামানের নির্দেশে পুলিশ সদর উপজেলার বরিশল ও উলচাপাড়া গ্রামে নৌকার মার্কার সমর্থকদের বাড়িতে তল্লাশী ও নেতা-কর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করে। এ ছাড়াও এসিল্যান্ড মোঃ কামরুজ্জামান, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারি কমিশনার তনিমা আফরাদ ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রেজাউল কবিরের নির্দেশে সদর উপজেলার বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রের সামনে নৌকা মার্কার সমর্থক ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের পুলিশ লাঠিচার্জ করে। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন বলেন, জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খান স্মারকলিপি গ্রহণ করে তদন্তসাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন। দোষীদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে জেলা ছাত্রলীগ দাবি আদায়ে নিয়মতান্ত্রিক কর্মসূচী পালন করবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্মারকলিপি


আরও
আরও পড়ুন