Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৭ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

সরকার-বিদ্রোহী তীব্র লড়াই

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের ৫ টাউনশিপে কারফিউ জারি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

রাখাইন রাজ্য সরকার মঙ্গলবার বিকেলে ৫টি টাউনশিপে কারফিউ জারি করেছে। মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও আরাকান আর্মির (এএ) মধ্যে তীব্র লড়াইয়ের প্রেক্ষাপটে কারফিউ জারি করা হয়। রাখাইন রাজ্য সীমান্তবিষয়ক মন্ত্রী কর্নেল ফোন তিন্ত সোমবার সন্ধ্যায় ১ এপ্রিলের তারিখ-সংবলিত চিঠি সিত্তুই ও মরাক-ইউর আঞ্চলিক প্রশাসনিক কমিটি ও সেইসাথে আক্রান্ত ৫ টাউনশিপ- পননিগান, রাথেদাং, কিয়াকতাও, মরাক-উিউ ও মিনবিয়ারের প্রশাসনিক কমিটির কাছে পাঠান। এতে বলা হয়, রাখাইন রাজ্যে জানুয়ারি থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত পুলিশ ও সৈন্যদের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক সহিংস ঘটনায় নিরাপত্তা বাহিনীর অনেক সদস্য নিহত ও সম্পত্তির ক্ষতি হয়েছে। শান্তি-শৃঙ্খলা, স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্য চিঠিতে ৫টি টাউনশিপের কর্তৃপক্ষকে কারফিউ জারি করতে বলা হয়। ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি)-নিযুক্ত নগরবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ইউ উইন মিন্ত ফোনে ইরাবতীকে কারফিউ জারি করতে স্থানীয় প্রশাসনকে কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমতি প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি এ ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানাতে অস্বীকার করেন। কারফিউ জারির আদেশে গ্রাম ও শহরবাসীকে রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত ঘরের বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়। আরাকান ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) ইউনিয়ন আইনপ্রণেতা ইউ আং থাং শ বলেন, পুরো উত্তরাঞ্চলে এখন নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। তিনি বলেন, একে অপরের সাথে কোনো ধরনের আলোচনা ছাড়াই প্রশাসনিক সংস্থা ও আইন পরিষদ সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষ যা খুশি করছে। তিনি জানান, এই এলাকায় কারফিউ নতুন কিছু নয়। ২০১৬ সালে আরসার হামলার পরও সরকার কারফিউ জারি করেছিল। আবার ২০১৭ সালে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে রোহিঙ্গাদের ওপর ব্যাপক নির্যাতন ঘটে। ফলে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে যায়। আঙ বলেন, কারফিউয়ের ফলে এই ৫ টাউনশিপে বসবাসকারী লোকজন বিপদে পড়বে। সাউথ এশিয়ান মনিটর।



 

Show all comments
  • Harun Khan ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ৪:২০ এএম says : 0
    মিয়ানমারের কপালে অনেক দু:খ আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Yasir Arafat ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ৪:২১ এএম says : 0
    মিয়ানমারকে নিপীড়নের মনভাব থেকে সড়ে আসতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kowaj Ali khan ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:৪১ পিএম says : 0
    এই খুনি বারমাকে এমনভাবে চপেটাঘাত করিতে হইবে যাহাতে এই খোনি মলাউন্দের একটা দাঁত ও না থাকে এই বারমা unbilifer সম্প্রদায় বিশ্ব মানবতার শত্রু।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ