Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সড়ক দুর্ঘটনায় রাজীবের মৃত্যু

পরিবারকে ক্ষতিপূরণের রুলের শুনানি ১০ এপ্রিল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

সড়ক দুর্ঘটনায় সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীবের মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে কেন ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি আগামী ১০ এপ্রিল। গতকাল বুধবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানির দিন নির্ধারণ করে এ আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।
শুনানিকালে রুহুল কুদ্দুস কাজল আদালতকে বলেন, রাজীব মারা যাওয়ার পর একবছর পেরিয়ে গেছে। কিন্তু এখনও তার পরিবার কোনও ক্ষতিপূরণ পায়নি। রাজীবের দুই ভাই এতিমখানায় অসহায় জীবন-যাপন করছে। এ অবস্থায় ক্ষতিপূরণের রুলটা শুনানি হওয়া দরকার। এ রুলের শুনানির মাধ্যমে যে আদেশটা আসবে তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এরপর আদালত এ মামলায় রাজিবের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে বলা আগের দেয়া রুলের ওপর শুনানির জন্য আগামী ১০ এপ্রিল দিন ধার্য করেন।
আবরারের মৃত্যু ক্ষতিপূরণের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল:
রাজধানীর বসুন্ধরা গেট এলাকায় সু-প্রভাত বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) শিক্ষার্থী আবরার আহাম্মেদ চৌধুরীর নিহতের ঘটনায়, তার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল করেছেন বাস মালিক। গতকাল বুধবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন করা হয় বলে জানান রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। তিনি জানান, আবেদনের বিষয়টি আপিল বিভাগে চেম্বার জজ আদালতে শুনানি হতে পারে। তিনি বলেন, এর আগে গত ২০ মার্চ আবরারের পরিবারকে এক সপ্তাহের মধ্যে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে সু-প্রভাত পরিবহনকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আবরারের পরিবারকে কেন ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে আদালত রুল জারি করেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ক্ষতিপূরণ


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ