Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

টেকনাফে রোহিঙ্গা ডাকাতের গুলিতে নিহত ১

টেকনাফ উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গা স্বশস্ত্র ডাকাত গ্রুপের প্রকাশ্যে গুলিতে হাশেম ডাকাত নিহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
জানা যায়, গতকাল সকালে উপজেলার নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের মাহমুদুল হাসান, জকির ও কালা সেলিমের নেতৃত্বে পার্শ্ববর্তী পাহাড় থেকে উগ্রপন্থী সংগঠনের পোশাক পরিহিত এবং মুখোশধারী ১০-১২জনের স্বশস্ত্র একটি গ্রুপ নেমে নয়াপাড়া ক্যাম্পের এইচ ব্লকে গিয়ে পীর মোহাম্মদের ছেলে ও শিশু অপহরণের হোতা হাশেমকে বাড়ি থেকে বের করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে বীরদর্পে পাহাড়ের দিকে চলে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী রোহিঙ্গারা জানান।
উপস্থিত স্বজনরা গুলিবিদ্ধ হাশেমকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যাম্প হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক সকাল সোয়া ১১টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়। ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গা সূত্রে জানা যায়, স¤প্রতি নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তারের জেরধরে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার চেষ্টা, খুন, ভাড়াটে, মাদকের চালান লুটপাট ও শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ বাণিজ্য নিয়ে মুখোমুখী অবস্থানে রয়েছে। এই ধরনের অপতৎপরতায় প্রাণহানির ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ায় রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি, স্থানীয় পার্শ্ববর্তী জনসাধারণ পর্যন্ত হুমকির মুখে পড়েছে। ক্যাম্পে আইন-শৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর স্বাভাবিক কার্য্যক্রম চ্যালেঞ্জিং হয়ে পড়ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
নয়াপাড়া ক্যাম্প পুলিশের উপপরিদর্শক আব্দুস সালাম জানান, নয়াপাড়া ক্যাম্পের এইচ বøক হতে গুলিবিদ্ধ হাশেমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে হাসপাতালে মারা যায়। তার লাশ উদ্ধার করে কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
এদিকে সম্প্রতি উদ্ধার হওয়া শিশু কাউছারের স্বজনের দাবি-শিশু অপহরণের অভিযোগে আটক দুই রোহিঙ্গা দুর্বৃত্তদের অপকর্মের মূল নায়ক প্রকাশ্যে দুবৃর্ত্তদের গুলিতে নিহত মো. হাশেম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা


আরও
আরও পড়ুন