Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

সরকার দেশে বাকশাল কায়েমের চক্রান্ত করছে -মহানগর সম্মেলনে পীর সাহেব চরমোনাই

ইমতিয়াজ সভাপতি : জাকারিয়া সেক্রেটারি নির্বাচিত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

 ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেছেন, সরকার নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়ে দেশে বাকশাল কায়েমের চক্রান্ত করছে। জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে আজীবন ক্ষমতায় টিকে থাকতে দেশকে পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত করছে। তিনি বলেন, দেশ এক অনিশ্চিত গন্তব্যের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। মানুষের জানমাল, ইজ্জত-আব্রæর নিরাপত্তা নেই।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং বাসযোগ্য নগর গড়ার দাবিতে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
পীর সাহেব চরমোনাই আরো বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোকে সুষ্ঠু নির্বাচনের আশ্বাস দিয়ে সরকার জাতির সাথে যে প্রতারণা করেছে, তা বিশ্বে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। তিনি বলেন, নগরীর ২২ হাজার বিল্ডিং-এর মধ্যে মাত্র দুই শত বিল্ডিং অনুমোতি রয়েছে। শোনা যাচ্ছে ১ লাখ মহিলা ড্রাইভার রাজধানীতে ট্রেনিং দিয়ে নামাবে। এতে দুর্ঘটনা রোধের পরিবর্তে গজব নেমে আসবে।
পীর সাহেব বলেন, ফেরাউনও ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য বনী ঈসরাইলের বংশের সন্তানদের হত্যা শুরু করেও টিকে থাকতে পারেনি। তার ঘরেই মুসা (আ.) লালিত-পালিত হয়েছিল। আওয়ামী লীগের ঘরেই তেমন শত্রæ তৈরি হতে পারে।
ওলামায়ে কেরামের ওয়াজ নিয়ন্ত্রণ প্রসঙ্গে পীর সাহেব বলেন, ঢালাওভাবে ওয়াজ মাহফিলের ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং ওয়ায়েজিনের ওপর করারোপের সিদ্ধান্ত সরকারের ইসলাম বিরোধী মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ। ইসলাম বিরোধীদের চক্রান্তে পা দিয়ে আলেমদের নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে সরকারের জন্য বুমেরাং হতে পারে এবং সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। তিনি বলেন, ওয়াজ-মাহফিল কোনো ব্যবসা নয়, ওয়ায়েজিনের ওপর ভ্যাট-ট্যাক্স আরোপের অপচেষ্টা সফল হবে না।
দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী। আরো বক্তব্য রাখেন,দলের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, ছাত্রনেতা শেখ ফজলুল করীম মারূফ, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান ও আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন।
সম্মেলনে ১০ দফা প্রস্তাব গৃহীত হয়।
সম্মেলন শেষে পীর সাহেব চরমোনাই মহানগর দক্ষিণ ২০১৯-২০ সেশনের জন্য সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম ও সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া এর নাম ঘোষণা করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পীর সাহেব চরমোনাই


আরও
আরও পড়ুন