Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

পরস্পরের সেনাবাহিনীকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ ঘোষণা করছে যুক্তরাষ্ট্র-ইরান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ এপ্রিল, ২০১৯, ৭:৫২ পিএম

ইরানের এলিট ফোর্স রিভল্যুশনারি গার্ডস বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দিতে যাচ্ছে আমেরিকা। আগামী সোমবারের মধ্যে যত দ্রুত সম্ভব এ ঘোষণা দেওয়া হতে পারে। তিন মার্কিন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ খবর দিয়েছে। এদিকে, পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে মার্কিন সেনাবাহিনীকেও সন্ত্রাসী তালিকাভুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে ইরান। দেশটির এক সংসদ সদস্য এ ঘোষণা দিয়েছেন।
প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ওয়াশিংটন এই প্রথম অন্য কোনো দেশের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে এ ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে বলে। ওই মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট আগামী সোমবারের আগে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এ ঘোষণা দেবে। কয়েক বছর আগেই থেকেই এ ধরনের প্রচারণা চলছিল।
তবে সমালোচকরা সতর্ক বলেছেন, এর ফলে প্রতিদ্বন্দ্বী দেশগুলোও মার্কিন সেনাবাহিনী ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে একই ধরনের ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ পাবে।
রয়টার্স বলছে, মার্কিন প্রশাসন পেন্টাগন এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি, এবং কোনো কিছু জানার থাকলে স্টেট ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা বলে। কিন্তু স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও হোয়াইট হাউজও মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানায়।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তেহরানের বিরুদ্ধে ট্রাম্প প্রশাসন যে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে তার অংশ হিসেবে সর্বশেষ এই নীতির ব্যাপারে পরামর্শ রয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর। যিনি ইরানের চরম বিরোধী।
এদিকে, মার্কিন সেনাবাহিনীকেও সন্ত্রাসী তালিকাভুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছে ইরান। দেশটির এক সংসদ সদস্য এ ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, আমেরিকা যদি ইরানের ইসলামিক রিভ্যলুনারি গার্ডস কর্পসকে (আইআরজিসি) সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দেয়, তাহলে তেহরানও পাল্টা পদক্ষেপ নেবে।
হাশমতুল্লাহ ফালাহতপিশেহ নামের ওই সংসদ সদস্য বলেন, ‘রিভ্যলুশনারি গার্ডসকে যদি আমেরিকা সন্ত্রাসী তালিকাভুক্ত করে, আমরাও দেশটির সেনাবাহিনীকে ইসলামিক স্টেটের (দায়েশ) পর সন্ত্রাসী কালো তালিকাভুক্ত করব।’
ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে করা পরমাণু চুক্তি থেকে গত বছর একতরফাভাবে বেরিয়ে যায় ট্রাম্প প্রশাসন। সেই ঘটনার বর্ষপূর্তির আগে নতুন এ ঘোষণা দিতে পারে ওয়াশিংটন। পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর তেহরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন ট্রাম্প। ইরানের অর্থনীতে যার ব্যাপক প্রভাব পড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।
প্রসঙ্গত, আমেরিকা ইতোমধ্যে ইরানের ইসলামিক রিভ্যুলুশেন গার্ড কর্পস (আইআরজিসি)-এর কিছু প্রতিষ্ঠান ও কর্মকর্তাকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে। তবে এই প্রথম পুরো বাহিনীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে।



 

Show all comments
  • জয়নাল ৯ এপ্রিল, ২০১৯, ৯:৩৭ এএম says : 0
    এই কাজ এই ধরানে ঘোষণা ভাল কিছু হবে না অসানতিকে বহন করে নিয়ে আসবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ