Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

শরণার্থীদের ফিরে যেতে বার্তা ট্রাম্পের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ এপ্রিল, ২০১৯, ৬:৫৫ পিএম

সামনের বছরে ভোট আমেরিকায়। নির্বাচনী প্রচার শুরু হয়ে গিয়েছে এখন থেকেই। আর এই মুহূর্তে সীমান্তে অভিবাসী এবং শরণার্থী সমস্যাকেই পাখির চোখ করতে চাইছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট হুমকি দিয়েছিলেন মেক্সিকো সীমান্ত পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ার। এ বার মেক্সিকোর সীমান্ত পেরিয়ে যে সব শরণার্থী আমেরিকায় ঢোকার চেষ্টা করছেন, তাদের প্রতি তার বার্তা, ‘আমাদের দেশ পুরো ভর্তি। আর একটুও লোক নেওয়ার অবস্থা নেই আমাদের। তাই আপনারা ফিরে যান। ওটাই একমাত্র সমাধানের রাস্তা।’ নির্বাচনী প্রচারেও ট্রাম্প এই কথাগুলিকেই অস্ত্র করতে চলেছেন বলে মনে করছেন অনেকে।

বৃহস্পতিবার ক্যালিফর্নিয়ার ক্যালেক্সিকোতে গিয়েছিলেন ট্রাম্প। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক ছিল তার। সেখানেই তিনি জানান, মধ্য আমেরিকা থেকে যে সংখ্যায় অভিবাসীরা মেক্সিকো সীমান্ত পেরিয়ে এখনও আমেরিকায় ঢুকতে চাইছেন, তা ভয়াবহ। এত লোক নেওয়ার ক্ষমতা আমেরিকার নেই।

ক্যালিফর্নিয়া সীমান্তের গা ঘেঁষা উত্তর মেক্সিকোর মেক্সিকালি শহরের মানুষ জানতেন ট্রাম্পের ক্যালেক্সিকো সফরের কথা। ট্রাম্পের এই বার্তায় যে মেক্সিকোর শরণার্থীরা খুশি নন, তা স্পষ্ট হয়েছে তাদের প্রতিবাদ কর্মসূচিতে। যে রাস্তা দিয়ে প্রেসিডেন্টের কনভয় যাওয়ার কথা ছিল, শ’দুয়েক মানুষ সেখানে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ দেখান। তাদের নিশানায় ছিল ট্রাম্পের কঠোর শরণার্থী নীতি। শিশুরূপী ট্রাম্পের বেলুন দেখা যায় কারও হাতে। কারও হাতে প্ল্যাকার্ড, ‘পরিবারকে বিচ্ছিন্ন করা বন্ধ করুন।’ কোনওটায় আবার লেখা, ‘আপনি দেওয়াল তুললে আমার প্রজন্ম তা ভেঙে দেবে।’ তবে উল্টো ছবিটাও ছিল। ক্যালেক্সিকোর বাসিন্দাদের বেশির ভাগই আবার ট্রাম্পের শরণার্থী নীতিকে সমর্থন করেন। ‘দেওয়াল তুলুন’ প্ল্যাকার্ড হাতে তারা তাদের শহরে স্বাগত জানিয়েছেন প্রেসিডেন্টকে।

তবে ওয়াশিংটন ফিরে যাওয়ার আগে সীমান্ত নীতি নিয়ে সুর কিছুটা নরম করেছেন ট্রাম্প। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হোয়াইট হাউসের আধিকারিকরা ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন, সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া নিয়ে চরম কিছু সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন প্রেসিডেন্ট। ক্যালেক্সিকোতে শনিবার কিন্তু সে কথা বললেন না ট্রাম্প। বরং জানালেন, সীমান্ত বন্ধের হুমকি দেওয়ার পরে গত চার-পাঁচ দিনে শরণার্থী অনুপ্রবেশ অনেকটাই আটকানো গিয়েছে। সে জন্য মেক্সিকো সরকারের প্রশংসাও করেন প্রেসিডেন্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ট্রাম্প


আরও
আরও পড়ুন