Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জম্মু ও কাশ্মীরের সড়কে শত শত যানবাহন আটকা

মহাসড়কে নিষেধাজ্ঞায় ক্ষোভ হাজার হাজার মানুষ দুর্ভোগে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

জম্মু ও কাশ্মীরের মূল সড়কে আটকা পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ। এ নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন কাশ্মীরিরা। রবিবার বেসামরিক যান চলাচল নিষিদ্ধ করার পর শত শত যানবাহন আটকা পড়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, সাধারণ মানুষ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও পুলিশের কাছে অনুরোধ করছেন, যাতে তাদের একটু যেতে দেয়া হয়। কিন্তু কোনো বেসামরিক লোককেই সেখান দিয়ে যেতে দেয়া হয়নি। এদিকে কাশ্মীরের প্রধান মহাসড়কটি বন্ধ করে সরকারের নির্দেশনা জারির পর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুসলিম অধ্যুষিত রাজ্যটির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। তিনি বলেন, সর্বশেষ আমি মনে করেছিলাম, আমরা গণতন্ত্রের মধ্যে রয়েছি। কিন্তু এখন যা ঘটছে, তা সামরিক আইন জারির মতোই। ক্ষুদে বøগ টুইটারে দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, কাশ্মীর সংঘাতে কিনারে যাওয়ার পর থেকে ভারতীয় প্রশাসন সমস্ত কাশ্মীরিদের সাজা দিচ্ছে। সামরিক ও আধাসামরিক বাহিনীর গাড়ি বহর চলাচল নির্বিঘœ করতে এই বিধিনিষেধ বলে রোববার রাজ্যটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। সড়কটিতে সেনা সদস্যরা টহল দিচ্ছে। এ খবর জারিয়েছে ডন অনলাইন। এদিকে সাউথ এশিয়ান মনিটরের প্রতিবেদনে বলা হয়, কাশ্মীরের ন্যাশনাল হাইওয়ে ৪৪-এর উধামপুর থেকে বারামুল্লা পর্যন্ত ২৭০ কিলোমিটার রাস্তায় বেসামরিক যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্তটি তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে। গত ৩ এপ্রিল কাশ্মীরের স্বরাষ্ট্র দফতর এক নির্দেশে জানায়, উপত্যকায় নিরাপত্তা বাহিনীর চলাচলে সুবিধার্থে ৩১ মে পর্যন্ত রোববার থেকে বুধবার সকাল ৪টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ওই মহাসড়ক দিয়ে বেসামরিক যানবাহন চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সরকারি নির্দেশে বলা হয়েছে, আসন্ন পার্লামেন্ট নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু ও নির্বিঘেœ আয়োজন করা যায়, তা নিশ্চিত করতে কাশ্মীরে নিরাপত্তা বহরের চলাচল হচ্ছে। গত কয়েক দিন ধরেই সামরিক ও আধাসামরিক বাহিনীর চলাচলের কারণে ওই মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে বেসামরিক যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ ছিল। বহির্বিশ্বের সাথে কাশ্মীরের সংযোগের এই একটি পথই রয়েছে। ফলে এই মহাসড়কটি বন্ধ করা হলে কাশ্মীরীদের দৈনন্দিন জীবনে মারাত্মক ব্যাঘাতের সৃষ্টি হবে। বিশেষ করে রোগী, স্কুলছাত্র, ব্যবসায়ী, সরকারি কর্মী, কৃষক, খামারি ও যানবাহন চালকেরা মারত্মক সমস্যায় পড়বেন। কাশ্মীর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি শেখ আশিক দি ওয়্যারকে বলেন, ভূমিধস ও খারাপ আবহাওয়ার কারণে এই মহাসড়কটি প্রায়ই বন্ধ থাকায় আমরা আগে থেকেই একমুখী যান চলাচল ব্যবস্থায় ছিলাম। এর ফলে স্থানীয় উৎপাদিত পণ্যরাজি রফতানি করতে আমরা মাত্র তিন দিন সময় পাচ্ছিলাম। এখন নতুন পরিস্থিতির ফলে আমরা কার্যত দুদিন সময় পাবো। ডন, এনডিটিভি, এসএএম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মহাসড়ক


আরও
আরও পড়ুন