Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২১ মে ২০১৯, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি না হওয়ায় ক্ষোভ

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সরকারি প্রজ্ঞাপণ অনুযায়ী অন্যান্য দপ্তরের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি হলেও দীর্ঘদিন ধরে পদোন্নতি বঞ্চিত রয়েছেন জেলা পরিষদে কর্মরত সার্ভেয়ারগণ। ফলে দেশের বিভিন্ন জেলা পরিষদের কর্মরত সার্ভেয়ারদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ফরিদপুর জেলা পরিষদে কর্মরত সার্ভেয়ারেরা জানান, জেলা পরিষদের ১৯৯০ ম্যানুয়ালে সার্ভেয়ার পদটি এলজিইডি হতে প্রেষণে থাকলেও ২০০৬ সালের ১৬ জানুয়ারি প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে উক্ত পদে ১০০% সরাসরি নিয়োগের জন্য সরকার কতৃক অনুমোদিত সার্ভে ইনস্টিটিউট হতে চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমাধারী চেয়ে প্রজ্ঞাপণ জারি করা হয়। কিন্তু সার্ভেয়ারদের পদোন্নতির বিষয়ে কোন বিধান রাখা হয়নি। ফলে এলজিইডি, পৌরসভাসহ অন্যান্য দপ্তরগুলোতে সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারলেও কেবলমাত্র বঞ্চিত রয়েছেন জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ। জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি না থাকায় জেলা পরিষদের উপ-সহকারী প্রকৌশলীর পদটি এলজিইডি থেকে প্রেষণে এনে কাজ চালানো হচ্ছে। অথচ জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি দিলে তারাই পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারতেন। অন্যান্য দপ্তরের সার্ভেয়ানগণ পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারলে জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ একই যোগ্যতা থাকা সত্বে কেন পদোন্নতি পাবেন না এমন প্রশ্ন এখন জেলা পরিষদে চাকরিরত সার্ভেয়ারদের। ফরিদপুর জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার ব্যতিত বার্তা বাহক থেকে প্রধান প্রকৌশলী পদে পদোন্নতির বিধান আছে। এটি কোন ভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। তিনি বলেন, পৌরসভায় চাকরিরত একজন সার্ভেয়ার ৫ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকলে তিনি উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি যোগ্য হচ্ছেন। অথচ একই যোগ্যতা থাকার পরও জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চিত রয়েছেন। জেলা পরিষদের একেকজন সার্ভেয়ার ১২/১৫ বছর ধরে সার্ভেয়ার পদে থাকলেও তাদের কোন পদোন্নতি নেই। এ বিষয়ে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন জেলা পরিষদে চাকরিরত সার্ভেয়ারগণ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন