Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী

বাঁশের সাঁকোই দুই উপজেলাবাসীর ভরসা

পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার ১০নং জাবরহাট ইউনিয়ন দিয়ে বয়ে যাওয়া টাঙ্গন নদীর আতাই ঘাটে দীর্ঘদিনেও কোন সেতু নির্মাণ হয়নি। একটি সেতুর অভাবে দুই উপজেলার প্রায় ৫০ হাজার মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপার হচ্ছেন। নদীর এপারে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলা ওপারে দিনাজপুর জেলার বোচাগঞ্জ উপজেলা।
সরেজমিনে দেখা যায়, ঐ এলাকার সাগরাম ও মাইকেলের উদ্যোগে নির্মিত প্রায় এক হাজার ফুট লম্বা ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে চলাচল করছে কোমলমতি শিক্ষার্থী, কৃষক-কৃষানী, ব্যবসায়ীসহ দু’উপজেলার প্রায় ত্রিশ হাজার মানুষ। আসা যাওয়ার জন্য এ সাঁকোটিই একমাত্র ভরসা। বাঁশের সাঁকোর উপর দিয়ে কৃষি পন্য পরিবহন ও অন্যান্য ভারী যানবাহন চলাচলের উপযোগী না হওয়ায় ঐ এলাকার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য সহজভাবে বাজার জাত করতে পারছে না।
অপরদিকে দুুর্ভোগ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত ঐ এলাকার মানুষ। বাঁশের সাঁকোর উগ্যোক্তা সাগরাম ও মাইকেলসহ বেশ কয়েকজন স্থানীয় মাতব্বর বাঁশের সাঁকো দিয়ে পারাপারের জন্য প্রতি জনের কাছ থেকে ৫ থেকে ১০ টাকা এবং বাইসাইকেল-মোটরসাইকেল পারাপারে ১৫-২০ টাকা নিচ্ছে। এ যেন একটি নিরব চাঁদাবাজি। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করলে নানাভাবে হেনেস্তার শিকার হতে হয় পথচারীদের। তাছাড়া ঐ ঘাটের পূর্বপাশে প্রতিবছরই বান্নি স্নান উৎসবের আয়োজন করা হয়। দুই উপজেলার হাজার হাজার হিন্দুধর্মাবলম্বী ভক্তরা উৎসব পালন করতে আসেন সেখানে। কিন্তু পীরগঞ্জের এপারে বাঁশের সাঁকোর ব্যবস্থা থাকলেও ওপারে বোচাগঞ্জ উপজেলায় বাঁশের সাঁকোর ব্যবস্থা না থাকায় হাটু পানি ভেঙে যাতায়াত করতে হয় ওপারের বোচাগঞ্জ উপজেলায়। ফলে ঐসব এলাকার লোকজনের দুর্ভোগের যেন শেষ নেই। এলাকাবাসীর দাবি একটি স্থায়ী সেতু নির্মাণের। সেতু নির্মাণ হলে দু’উপজেলার হাজার হাজার মানুষের ভোগান্তি কমবে।
এ বিষয়ে স্থানীয় জাবরহাট ইউপি চেয়ারম্যান মো. হুমায়ুন কবীর জানায় ভরা বর্ষা মৌসুমে নৌকার ওপর দিয়ে যাতায়াত করে দু’উপজেলার মানুষ। নদীর আতাই ঘাটে সরকারি অর্থায়নে একটি সেতু নির্মাণ করা প্রয়োজন। ব্রিজটি নির্মাণ করা হলে দু’উপজেলার মানুষের যাতায়াতে সুবিধার পাশাপাশি এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন ঘটবে।
এ ব্যাপারে পীরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী ইসমাইল হোসেন বলেন, সেতু নির্মাণের বিষয়টি কর্তৃপক্ষের। যুগোপোযোগী সেতু নির্মাণের প্রয়োজন হলে সরজমিনে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন