Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাভেল এলার্টে বাংলাদেশ অতি ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায়

কূটনৈতিক সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০১৯, ১০:৪৮ এএম

বিশ্বের ৩৫টি দেশকে মার্কিন নাগরিকদের জন্য অতি ঝুঁকিপূর্ণ আখ্যা দিয়ে ‘কে’ ক্যাটাগরিভুক্ত করেছে স্টেট ডিপার্টমেন্ট, যেখানে বাংলাদেশের নামও স্থান পেয়েছে। গত ৯ই এপ্রিল ট্রাম্প প্রশাসন মার্কিন নাগরিকদের ক্যাটাগরিভিত্তিক নতুন ওই ট্রাভেল এলার্ট বা ভ্রমণ সতর্কতা জারি করে। এ নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর প্রচারিত মিডিয়া নোটে দাবি করা হয়েছে ‘কে’ ক্যাটাগরিভূক্ত ওই সব দেশে মার্কিন নাগরিকরা ভ্রমণে গেলে ‘অপহৃত’ কিংবা ‘পণবন্দি’ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। মার্কিন নিরাপত্তা সতর্কতার অতিব ঝুঁকিপুর্ণ ‘কে’ ক্যাটাগরিতে এমন এক সময় বাংলাদেশের নাম উঠলো যখন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেও’র বিশেষ আমন্ত্রণে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন ওয়াশিংটন সফর করছেন। নতুন সতর্কবার্তা জারির একদিন আগেই তিনি মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপ-প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেন।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এতদিন সংঘবদ্ধ অপরাধ, সন্ত্রাসবাদ, অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তাহীনতা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিসহ কিছু সূচকের ভিত্তিতে মার্কিন নাগরিকদের ভ্রমণের ওপর সতর্কতা জারি করা হতো। কিন্তু এবার ‘কে’ নামক নতুন একটি সূচক যোগ করা হয়েছে- যাতে ‘অপহরণ’ ও ‘পণবন্দি’ হওয়ার আশঙ্কাকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। ‘কে’ ক্যাটাগরির তালিকায় স্থান পাওয়া দেশগুলো হলোÑ আফগানিস্তান, আলজেরিয়া, অ্যাঙ্গোলা, বাংলাদেশ, বারকিনা ফাসো, ক্যামেরন, মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র, কলম্বিয়া, কঙ্গো, ইথিওপিয়া, হাইতি, ইরান, ইরাক, কেনিয়া, লেবানন, লিবিয়া, মালয়েশিয়া, মালি, মেক্সিকো, নাইজার, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, পাপুয়া নিউগিনি, ফিলিপাইন, রাশিয়া, সোমালিয়া, দক্ষিণ সুদান, সুদান, সিরিয়া, ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগো, তুরস্ক, উগান্ডা, ইউক্রেন (রুশ নিয়ন্ত্রিত পূর্ব ইউক্রেন), ভেনিজুয়েলা ও ইয়েমেন।
স্টেট ডিপার্টমেন্টের বিজ্ঞপ্তি মতে, উল্লেখিত ৩৫ দেশে ভ্রমণকারী মার্কিন নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার। নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে এসব দেশের কনস্যুলার অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে মার্কিন কর্তৃপক্ষ। নতুন কোনো তথ্য পেলে তা-ও জানানো হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ