Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

দরজা খুলছে ব্রাভো-পোলার্ড-রাসেলদের!

বিশ্বকাপে উইন্ডিজের কোচ রেইফার

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ এপ্রিল, ২০১৯, ৯:৪৭ পিএম

ক’দিন ধরেই বাতাসে জোর গুঞ্জন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট কোচিং স্টাফে আসছে বড় পরিবর্তন। হলোও তাই। আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপের মাত্র মাসদেড়েকের মতো সময় বাকি থাকতে নতুন কোচ ঘোষণা করলো উইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশের সাবেক কোচ রিচার্ড পাইবাসের বদলে নিজ দেশের সাবেক অধিনায়ক ফ্লয়েড রেইফারকে বিশ্বকাপের জন্য দায়িত্ব দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।
২০০৯ সালে উইন্ডিজ জাতীয় দলের নিয়মিত ক্রিকেটাররা যখন বিদ্রোহ করছিল, তখন বাংলাদেশের বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজে এবং পরে সে বছর হওয়া আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে অধিনায়কত্ব করেছিলেন ৪৬ বছর বয়সী রেইফার। তবে এখনই তাকে চূড়ান্ত করেনি বোর্ড। বরং অন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্যই দায়িত্ব দিয়েছে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের নব নির্বাচিত সভাপতি রিকি স্কেরিট।
এছাড়া উইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের পুরো নির্বাচক কমিটি বাতিল ঘোষণা করে দেয়া হয়েছে। যার ফল ২০১৩ থেকে নির্বাচকের এবং ২০১৬ থেকে প্রধান নির্বাচকের দায়িত্বে থাকা কোর্টনি ব্রাউন দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন। তার বদলে অন্তবর্তীকালীন প্রধান নির্বাচকের দায়িত্ব পেয়েছেন সাবেক ক্রিকেটার রবার্ট হেইন্স।
এ সব দায়িত্ব দেয়ার কালে নব নির্বাচিত বোর্ড প্রধান স্কেরিট বলেন, ‘সাম্প্রতিক অবস্থা বিবেচনায় আমাদের মনে হয়েছে নির্বাচক কমিটিটা আরও বেশি উন্মুক্ত, যুক্তিসম্মত এবং খেলোয়াড়বান্ধব হওয়া উচিৎ। যে কারণে আমরা আমাদের সিলেকশন পলিসিতেও বদল এনেছি। আমি সবাইকে নিশ্চিত করতে চাই যে অতীতে গোপনে বা প্রকাশ্যে যেসব খেলোয়াড় বঞ্চনার শিকার হয়েছেন, তারা সবাই এখন থেকে পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে জাতীয় দলের বিবেচনায় থাকবে।’
খেলোয়াড় নির্বাচন পদ্ধতি স্বচ্ছ রাখতে নতুন কোচ ফ্লয়েড রেইফার এবং বোর্ড ডিরেক্টর জিমি অ্যাডামস সার্বিক সহযোগিতা করবেন নতুন প্রধান নির্বাচক হেইন্সকে। বহিষ্কৃত প্রধান নির্বাচকের সঙ্গে কমিটিতে থাকা অন্যান্য নির্বাচক লকার্ট সেবাস্তিন, ট্রাবিস ডাওলিন এবং এলডিন বাপতিস্তকেও দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।
বিশ্বকাপে জাতীয় দলের প্রধান কোচ হওয়ার আগেই দলের দায়িত্ব নিয়ে বাংলাদেশ সফরে এসে একটি টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতার অভিজ্ঞতা রয়েছে রেইফারের। এছাড়া গতবছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দলের কোচের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি।
আগের কোচ পাইবাসের ওপর নাখোশ ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বহু সিনিয়র ক্রিকেটার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য দলে ঠাঁই পেতে ঘরোয়া ক্রিকেটে অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক করেছিলেন তিনি। ক্রিকেটাররা এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে তখন তার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন দ্বন্দ্বে। এ কারণে বেশ কিছু সিনিয়র ক্রিকেটার জাতীয় দলকে বাদ দিয়ে বিভিন্ন টি-টোয়েন্টি লিগে খেলা বেছে নিয়েছিলেন।
এবার কোচ পরিবর্তন হওয়ায় ডোয়াইন ব্রাভো, কাইরন পোলার্ড এবং আন্দ্রে রাসেলের মত তারকা খেলোয়াড়দের ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের দরজা খুলে যেতে পারে। গত মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ডেভ ক্যামেরনকে হারিয়ে সিডব্লিউআই সভাপতি নির্বাচিত হন স্কেরিট।
ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপে ট্রেন্ট ব্রিজে আগামী ৩১ মে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে উইন্ডিজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ক্রিকেট

১৫ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন