Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

নববর্ষ উৎসবেও ক্ষুধার কান্না

মতবিনিময় সভায় রাশেদ প্রধান

স্টাফ রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ১৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৭ এএম

দেশবাসীকে বৈশাখ ও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে জাগপা’র কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও মুখপাত্র রাশেদ প্রধান বলেছেন, উৎসব মানেই সমঅধিকারে গরীব-ধনী আনন্দ উপভোগে মেতে ওঠা। কিন্তু আফসোস স্বাধীনতা পেয়েছি- পরাধীনতার কালো ছায়া আজও তাড়াতে পারি নাই। কেউ খাবে কেউ খাবে না এটা স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম ছিল না। স্বাধীনতা এখন দেশী ও ভিনদেশী ষড়যন্ত্রের অন্তরায়। গতকাল শনিবার সকালে রাজধানীর আসাদ গেট জিইউপি মিলনায়তনে জাগপা আয়োজিত যৌথ মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

রাশেদ প্রধান বলেন, শাসকের বেপরোয়া লুটপাট আর দুর্নীতির অন্তরালই গরীবের জন্য উৎসব মানেই হচ্ছে ক্ষুধার আর্তচিৎকার। চাল, ডালসহ দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। তার উপর গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করার গভীর ষড়যন্ত্র। দেশবাসীর জিজ্ঞাসা এসব হচ্ছেটা কি?
তিনি বলেন, উন্নয়নের সাফাই গেয়ে শাসকের আওয়াজ এখন দেখতে হচ্ছে ঢাকার রাস্তার পাশে সাইনবোর্ড লাগিয়ে বলতে হচ্ছে ‘উপরে পানি হলেও পানির নীচে রাস্তা ভালো’ এটা জাতির সাথে নির্লজ্জ বেহায়াপনা ছাড়া কিছুই নয়। তিনি সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন, আলামত ভাল দেখি না। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্রসহ এরা কারা? দেশের উপর কোন ষড়যন্ত্র আসীন হতে যাচ্ছে। দ্রুত ব্যবস্থা নিন। পরে আফসোস করার সময় পাবেন না। জাগপা’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুর রহমান খানের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন জাগপা’র কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি আবু মোজাফফর মোহাম্মদ আনাছ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইকবাল হোসেন, যুব জাগপা’র কেন্দ্রীয় সভাপতি আরিফুল হক তুহিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রকৌশলী সিরাজ, জাগপা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান ফারুকী, আহমেদ শফি, মাদারীপুর জেলা জাগপা সভাপতি সৈকত আহমেদ প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন