Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আরও ৬ বিভাগীয় শহরে বিটিভির কেন্দ্র হবে

চট্টগ্রামে তথ্যমন্ত্রী

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৭ এএম

বিটিভির অনুষ্ঠান সম্প্রচারে মানের সঙ্গে কোন আপোষ করা হবে না জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পেশাদার ও যোগ্য ব্যক্তিরাই বিটিভিতে অনুষ্ঠান নির্মাণে অগ্রাধিকার পাবে। শুধু সম্প্রচার সময় বাড়ালে হবে না, অনুষ্ঠানের মানও বাড়াতে হবে। মান সম্মত নয় এমন অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য কেউ পীড়াপীড়ি করবেন না। গতকাল শনিবার বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) চট্টগ্রাম কেন্দ্রের অনুষ্ঠান সম্প্রচার ৬ ঘণ্টা থেকে ৩ ঘণ্টা বাড়িয়ে ৯ ঘণ্টার অনুষ্ঠান সম্প্রচারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী একথা বলেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রকে শুধুমাত্র চট্টগ্রামভিত্তিক টেলিভিশন কেন্দ্রে সীমাবদ্ধ রাখা হবে না। এটা দেশের দ্বিতীয় জাতীয় স্বাধীন টেলিভিশন কেন্দ্র হিসেবে ক্রমান্বয়ে উন্নীত করা হবে। সেই ধারাবাহিকতায় আগামী ডিসেম্বর নাগাদ এটির সম্প্রচার ১২ ঘন্টায় উন্নিত করা হবে। বর্তমানে এটি শুধু ক্যাবল টেলিভিশন হিসেবে সারা দেশে দেখা যায় পরবর্তিতে এটিকে টেরিস্টেরিয়াল চ্যানেল হিসেবেও উন্নিত করা হবে। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশের বাকি ৬টি বিভাগীয় শহরে বিটিভির কেন্দ্র স্থাপন করার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। একনেক ইতোমধ্যে এ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে। সব মিলিয়ে বিটিভির নেটওয়ার্ককে আমরা এমন জায়গায় উন্নীত করতে চাই- আগে যেভাবে মানুষ ঘরে ঘরে বিটিভি দেখতো, আবার যেনো সেভাবে দেখে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণমাধ্যম বান্ধব উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ১৯৯৬ সালে সরকার গঠনের পর একুশে টেলিভিশনের মাধ্যমে প্রথম প্রাইভেট টেলিভিশনের যাত্রা শুরু হয়। সেই অভিযাত্রায় বাংলাদেশে এখন ৪৪টি টেলিভিশনের লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। তৎমধ্যে ৩২টি সম্প্রচারে আছে। আরো কয়েকটি সম্প্রচারে আসবে। কোলকাতায়ও এত টেলিভিশন চ্যানেল নাই।এক্ষেত্রে আমরা কোলকাতা-পশ্চিমবঙ্গ থেকে এগিয়ে। গত ১০ বছরে পত্রিকা প্রকাশের সংখ্যা ৪০ শতাংশ বেড়েছে। অনলাইন গণমাধ্যমের ব্যাপক বিকাশ ঘটেছে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, এক সময় চট্টগ্রামবাসীর আক্ষেপ ছিল। এ অঞ্চলে আমাদের নিজস্ব ঐতিহ্য আছে। আমাদের গর্ব করার মতো ইতিহাস আছে। এ অঞ্চলের সংস্কৃতি অনেক সমৃদ্ধ। বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মাধ্যমে আমাদের সমৃদ্ধ সংস্কৃতি তুলে ধরা হবে।
তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিটিভির মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাসহ বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের কলাকুশলীরা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিটিভি

২৫ জানুয়ারি, ২০২০
২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন