Inqilab Logo

রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

নৌযানের তথ্য ভান্ডার তৈরির উদ্যোগ

প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : নৌযানের নকশা অনুমোদনে কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল কর্তৃপক্ষের (বিআইডবিউটিএ) চেয়ারম্যান কমোডর এম মোজাম্মেল হক। গতকাল (সোমবার) নৌ-নিরাপত্তা নিয়ে বুড়িগঙ্গায় চলমান ভাসমান সেমিনারে বর্তমানে সমুদ্র পরিবহন অধিদফতর (ডিজি শিপিং) নকশা অনুমোদন করছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন, নৌযানগুলোর তথ্যভা-ার তৈরির কাজ চলছে। আগামী ২-৫ বছরের মধ্যে তথ্যভা-ার তৈরি হয়ে যাবে। ক্লিক করলেই নৌযানের তথ্যগুলো চলে আসবে। এতে বোঝা যাবে, নৌযানগুলো ফিট কিনা। নজরদারিও আরও বাড়বে।
নৌ-নিরাপত্তার দাবি নিয়ে ঢাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে চলছে এ ভাসমান সেমিনার। সকাল সাড়ে দশটায় সদরঘাটে বিআইডবিউটিএ’র ‘সন্ধানী’ জাহাজে পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে সেমিনারের উদ্বোধন করা হয়।
২০০৪ সালের ২৩ মে চাঁদপুরে মেঘনা নদীতে তিন শতাধিক যাত্রী নিয়ে ফিটনেসবিহীন লঞ্চ ‘এমভি লাইটিং সান’ ডুবির ১২তম বার্ষিকীতে এ সেমিনারের আয়োজন করে নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন ‘নোঙর’।
নৌ-চলাচল ও নৌ-নিরাপত্তার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বিআইডবিউটিএ’র চেয়ারম্যান বলেন, সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালের চাপ কমাতে পাশেই আরও একটি অত্যাধুনিক টার্মিনাল তৈরি হচ্ছে।   
রাতের বেলা নৌযান চলাচলের জন্য রাডার, জিপিএস, ইকো সাউন্ড রাখা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, যাতে যান্ত্রিক নিরাপত্তা ছাড়া কোনো নৌযান চলবে না। একইসঙ্গে চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
ঢাকার নদীর পাড়ে ইতোমধ্যে ২০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে (হাঁটার পথ) তৈরি করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আরও ৫০ কিলোমিটার তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। নদী দখল ও দূষণ রোধে একটি আমব্রেলা প্রজেক্ট গ্রহণ করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, দূষণের জন্য ৩০ শতাংশ দায়ী ট্যানারি। ট্যানারি সাভারে চলে গেলে এটা বন্ধ হবে। এছাড়া বিভিন্ন কল-কারখানা, ডায়িং ফ্যাক্টরি, গৃহস্থালির বর্জ্য দিয়েও নদী দূষিত হয়। আমব্রেলা প্রজেক্ট বাস্তবায়িত হলে দূষণ রোধ করা সম্ভব হবে।  
‘নদী ও নদীতে প্রাণ বাঁচাতে ঐক্য’Ñস্লোগানে আয়োজিত সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন পদ্মাসেতু প্রকল্পের বিশেষজ্ঞ ড. আনিসুজ্জামান খান, রাজউকের কর্মকর্তা সাইদুর রহমান, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওসার, বাংলাদেশ লঞ্চ মালিক সমিতির সহসভাপতি বদিউজ্জামান বাদল, এটিএন বাংলার প্রধান নির্বাহী সম্পাদক জ ই মামুন, পরিবেশ সংগঠক জাকিয়া শিশির, বিআইডবিউটিএ’র সাবেক কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ প্রমুখ।
‘এমভি লাইটিং সান’ ডুবির এক যুগ পূর্তির দিনে ওই দুর্ঘটনায় মা হারানো ‘নোঙর’-এর চেয়ারম্যান সুমন শামসের সভাপতিত্বে নদী ও পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা সেমিনারে অংশ নিচ্ছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নৌযানের তথ্য ভান্ডার তৈরির উদ্যোগ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ