Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২২ মে ২০১৯, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৬ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

বগুড়ায় বিএনপি নেতা মাহাবুব আলম শাহীন নৃশংসভাবে খুন

প্রতিবাদে বিএনপির ৫দিনে কর্মসূচি ঘোষণা

মহসিন রাজু, বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বগুড়া সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী ও পরিবহন ব্যবসায়ী নেতা অ্যাডভোকেট মাহবুল আলম শাহীন (৫৫) সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নৃশংসভাবে খুন হয়েছেন। এর প্রতিবাদে তাৎক্ষনিক ভাবে বগুড়া জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তেলন করে ও কালোব্যাজ ধারণ করে। বিএনপি এ ব্যাপারে ৫দিনের শোক ও প্রতিবাদের কর্মসূচিও ঘোষণা করেছে ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন শহরের উপশহর বাজার এলাকায় অবস্থায় সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন। তিনি এসময় তার ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত অপর পরিবহন ব্যবসায়ী নেতা আলিমুদ্দিনের সাথে চা’পানের পর আড্ডা দিচ্ছিলেন। এসময় ৫/৬ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসীর সংঘবদ্ধ ভাবে হামলা চালিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ও দু’পায়ে উপুর্যুপরি ভাবে ছুরিকাঘাত এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এসময় তাকে মৃত ভেবে হামলাকারীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা তার নড়াচড়া টের পেয়ে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। স্থানীয় ছিলিমপুর ফাঁড়ি পুলিশের এস আই আব্দুল আজিজ জানান, প্রথমে আহত অবস্থায় তাকে স্থানীয় স্বদেশ হাসপাতালে এবং সেখান থেকে মোহাম্মদ আলী জেলা হাসপাতাল হয়ে শহীদ জিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে ময়নাতদন্তের পর লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। বিকেলে বগুড়া জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে প্রথম ও তার বাড়ি শহরতলীর ধরমপুরে ২য় নামাজে জানাজার পর তাকে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয় ।
বগুড়া জেলা পুলিশের সহকারি পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, রাতে নিহতের স্বজনদের পক্ষ থেকে মামলা করা হবে। তিনি আরো জানান, পুলিশ হত্যাকারীদের শনাক্তকরণের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। ঘটনাস্থলের সংগৃহীত সিসিটিভির ফুটেজ পুলিশের কাছে এসেছে এবং সম্ভাব্য খুনিদের সনাক্ত করে তাদের গ্রেফতার করার প্রক্রিয়া চলছে।
এদিকে অ্যাডভোকেট শাহীন হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে গতকাল সোমবার বগুড়া বারে ফুলকোর্ট রেফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। আইনজীবীরা শহরে প্রতিবাদী মিছিলও বের করে। আইনজীবীরা দাবি করে ঘাতকরা যতই শক্তিশালী মহলের সমর্থন পুষ্ট হোকনা কেন দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হোক। এদিকে পূর্বঘোষিত কর্মসুচি অনুযায়ী আজ মঙ্গলবার শোক র‌্যালী বের করবে বিএনপি বলে জানান দলের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চান।
এদিকে নিহতের স্বজন ও পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে , মিষ্টভাষী এই নেতার রাজনৈতিক শত্রুতা না থাকলেও পরিবহন সেক্টরে বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দু’পক্ষের দ্বন্দের জেরেই তিনি সন্ত্রাসের শিকার হয়ে থাকতে পারেন। তার ওপর হামলার ধরণ দেখে পুলিশের ধারণা, পেশাদার খুনিরা তাকে হত্যা করেছে, তিনি সম্ভবত কন্ট্রাক্ট কিলিং এর শিকার ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খুন

১৪ এপ্রিল, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন