Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

চলন্ত বাসে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক ৮

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় দূরপাল্লার একটি চলন্ত বাসে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আন্তঃজেলা সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৮ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় উদ্ধার করা হয়েছে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র। রোববার দিবাগত গভীর রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। গতকাল সোমবার দুপুরে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।
আটক ডাকাতরা হলেন নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার থানাধীন মুকুন্দি এলাকার ইমান আলীর ছেলে ডাকাত সর্দার শাহিনুর রহমান শাহিন (৪৫), রংপুর জেলার পীরগঞ্জ থানাধীন সায়েকপুর এলাকার মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে তাজুল ইসলাম (৪৭), নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানাধীন ভবানীপুর মধ্যপাড়া এলাকার মৃত আ. রাজ্জাকের ছেলে এছার উদ্দিন (৪৭), নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানার হাছানুর রহমান (৩৮), ফরিদপুর জেলার সদর থানার পরমানন্দপুর এলাকারর মৃত সানাউল্লা শেখের পুত্র কামরুল হাসান (৩৫), গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর থানার ইসলামপুর এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে শরীফুল ইসলাম (২৮), জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ থানার পশ্চিমপাড়া ডিগ্রির চর এলাকার ফজলুল হকের ছেলে খোরশেদ আলম (৩৫) ও নারায়নগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানাধীন ঘুতুলিয়া এলাকার নাসির উদ্দিনের ছেলে মো. হুমায়ুন(২৭)।
আশুলিয়া থানার এসআই মনিরুজ্জামান মোল্লা ও বিলায়েত হোসেন জানান, এই ডাকাত দলের সদস্যরা যাত্রীবেশে কৌশলে দেশের বিভিন্ন জেলায় ডাকাতি করে থাকে। রাতেও সিলেট থেকে ঝিনাইদহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা পূর্বাশা পরিবহনে পূর্বে থেকেই টিকেট কেটে যাত্রীবেশী দুই ডাকাত বাসের ভিতর ছিল। পরে নরসিংদী পৌছলে আরো দুই ডাকাত বাসে যাত্রীবেশে ওঠে। এরপর সর্বশেষ সাভার থেকে তিন ডাকাত যাত্রীবেশে উঠে আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিতে থাকে। আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিজাউল হক জানান, আটক ডাকাতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন