Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী

দ্বি-রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধান চান মার্কেল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংঘাতে দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের ওপর জোর দিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মার্কেল। সোমবার ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে এক ফোনালাপে নিজ দেশের এমন অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি। আঙ্গেলা মার্কেলএক বিবৃতিতে এই ফোনালাপ নিয়ে কথা বলেছেন জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মার্কেলের মুখপাত্র স্টিফেন সেইবার্ট। তিনি বলেন, চ্যান্সেলর দুই পক্ষের সমঝোতার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন, যা উভয় পক্ষের মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে অর্জন করা যেতে পারে। এমন সময়ে মার্কেল দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানের কথা বললেন যখন ইসরাইলের কট্টর সমর্থক হিসেবে পরিচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বকেই অস্বীকার করতে চাইছেন। ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিনের সার্বভৌমত্বের বদলে ইসরাইলের পক্ষ থেকে দেশটিকে স্বায়ত্তশাসন দেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী ট্রাম্প। স¤প্রতি ইউরোপের ৩০ জনেরও বেশি সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে ট্রাম্পের ফিলিস্তিন সংক্রান্ত পরিকল্পনার সমালোচনা করা হয়। এতে ইসরাইলের পাশাপাশি ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং উভয় দেশের রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। চিঠিতে বলা হয়, জেরুজালেমকে উভয় রাষ্ট্রের রাজধানী করে দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধান ছাড়া এ সংক্রান্ত যে কোনও পরিকল্পনা ইউরোপের প্রত্যাখ্যান করা উচিত। ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইউরোপের বিভিন্ন দেশের সরকার এবং ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানে এই চিঠি পাঠানো হয়েছে। উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথিত ‘ডিল অব দ্য সেঞ্চুরি’-তে মূলত ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রকে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ওই প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকা চলে যাবে মিসরের অধীনে। আর পশ্চিম তীরের একাংশে থাকবে জর্ডানের রাজনৈতিক কর্তৃত্ব। অবশিষ্ট অংশ শাসন করবে ইসরাইল। এখানে বসবাসরত ফিলিস্তিনিদের ইসরাইল রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। তবে ফিলিস্তিনি নেতারা ট্রাম্পের এ পরিকল্পনা প্রত্যাখ্যান করলে ফিলিস্তিনকে রাজি করাতে এগিয়ে আসেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। আনাদোলু এজেন্সি, মিডল ইস্ট মনিটর।



 

Show all comments
  • Kazi Nasir ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ৩:৫০ এএম says : 0
    আঙ্গেলা মার্কেলকে অসংখ্য ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply
  • Esrafil Khan ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ৩:৫১ এএম says : 0
    এর একটা সমাধান হওয়া খুব জরুরী
    Total Reply(0) Reply
  • Nasrin Ferdousi ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ৩:৫১ এএম says : 0
    ইসরাইল পৃথিবীর জন্য অভিশাপ
    Total Reply(0) Reply
  • আজিজুর রহমান ১৭ এপ্রিল, ২০১৯, ৩:৫২ এএম says : 0
    ইসরাইলের অন্যায়ের বিরুদ্ধে সকল মানবতাবাদীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া উচিত।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জার্মান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ