Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২০ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

বোয়ালমারীতে সংঘর্ষ : বাড়িঘর ভাঙচুর

বোয়ালমারী (ফরিদপর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় বালুমহল ইজারা নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঘোষপুর ইউনিয়নের চন্ডিবিলা গ্রামে আ’লীগের দুই গ্রুপের আধিপত্য বিস্তার ও লংঙ্কারচর বালু মহল ইজারা নেয়াকে কেন্দ্র করে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮.০৪.১৯) ভোরে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ওই এলাকায় এক গ্রুপের নেতৃত্ব দেন ঘোষপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের কোষাধ্যক্ষ এসএম ফারুক হোসেন। অপর গ্রুপের নেতৃত্বে রয়েছেন উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ওই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মো. চাঁন মিয়া। 

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, উপজেলার ঘোষপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের কোষাধ্যক্ষ মো. ফারুক হোসেনের সমর্থকদের সাথে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, ওই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মো. চাঁন মিয়ার সমর্থকদের দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। পহেলা বৈশাখ থেকে আগামী ৩০ চৈত্র পর্যন্ত এক বছরের জন্য পাশ্ববর্তী মধুমতী নদীর লঙ্কারচর বালু মহল ইজারা নেয় মো. চাঁন মিয়ার সমর্থক পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক প্রকৌশলী মো. মোশাররফ হোসেন। ওই বালু মহল থেকে বালু উত্তোলন করে বালুবাহী পরিবহন যাতায়াতের সময় চেয়ারম্যান ফারুক হোসেনের লোকজন দিয়ে বাধা সৃষ্টি করে।
এ ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন সমর্থক চন্ডিবিলা গ্রামের কাজী রফিউদ্দিন, রাখালগাছী গ্রামের আজিজার মোল্যা ও বাবলু মোল্যার নেতৃত্বে প্রায় শতাধিক লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে চাঁন মিয়া সমর্থকদের ১৫-২০ টি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। হামলাকারীদের বাধা দিতে গেলে চন্ডিবিলা গ্রামের আবু বক্কার (৪৫) আহত হয়। আহতাবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে ইজারাদার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমি এলাকার লোকজন নিয়ে গত ১৫ এপ্রিল সোমবার উপজেলা চেয়ারম্যান, নির্বাহী অফিসার ও থানা অফিসার ইনচার্জকে মৌখিকভাবে বিষয়টি অবহিত করেছিলাম। কিন্তু ফারুক হোসেনের লোকজন বৃহস্পতিবার ভোরে আমার লোকজনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করে।
এ ব্যাপারে ঘোষপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. চান মিয়া বলেন, এলাকায় আধিপত্য ও লঙ্কারচর বালুমহল এজারাকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যান ফারুক হোসেনের ইন্ধনে আমার লোকজনের বাড়ি ঘরে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।
এ ব্যাপারে ঘোষপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন বলেন, আমি ওই ইউনিয়নের সকলের চেয়ারম্যান। কাজী রফিউদ্দিন, আজিজার মোল্যা আমার সমর্থক। বিষয়টি নিয়ে উভয় গ্রুপকে শান্ত রাখার চেষ্টা করেছিলাম, তারপরও ঘটনাটি ঘটে গেছে। এ ঘটনার সাথে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই।
থানা অফিসার ইনচার্জ একেএম শামিম হাসান জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেনের অনুসারীরা সাবেক চেয়ারম্যান চাঁন মিয়া সমর্থকদের বাড়ি ঘর ভাংচুর করেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পর্যন্তু কোন পক্ষই অভিযোগ দেইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ