Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

আধিপত্য নিয়ে মসজিদ ভাঙচুর ঘটনায় মামলা : ২ জন রিমান্ডে

ধামরাই (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

ঢাকার ধামরাইয়ের বাইচাইল সামের একটি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রাতের আঁধারে প্রায় চল্লিশ বছরের পুরোনো একটি জামে মসজিদ গুড়িয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষ। এ ঘটনায় আবুল হোসেন নামের এক মুক্তিযোদ্ধা বাদী হয়ে ৩৮ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ হান্নান ও মোজা দেওয়ান নামের ২ জনকে গ্রেফতার করে। তাদের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করেন। আদালত ১দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তারা রিমান্ডে ছিল। এনিয়ে ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের বাইচাইল গ্রামে ‘ইনসাফ’ নামে একটি সমিতি রয়েছে। এই সমিতির আওতায় মাঠ পুকুর, গাছসহ বেশ কিছু সম্পত্তি রয়েছে। মাঠের পাশে প্রায় ৪০ বছরের পুরানো একটি মসজিদও রয়েছে।
গ্রামের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ওই সমিতির দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে নেতৃত্ব নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিবাদ চলে আসছিল। এনিয়ে গত শনিবার গভীর রাতে দেওয়ান মোতাহার হোসেন ও লিটনের নেতৃত্বে একদল বাহিনি ওই চৌচালা মসজিদটি ভেঙ্গে পাশে একটি পুকুরে ফেলে রাখে। ভেতরের জিনিসও পত্র নিয়ে যায়।
পরে স্থানীয় সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মসজিদ ভাঙা ও গাছ কাটার বিষয়ে পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছ কাটা বন্ধ করেন। জড়িত থাকার অভিযোগে হান্নান ও মোজা নামের দুই জনকে গ্রেফতার করে।
বাইচাইল গ্রামের অনেকেই জানান, বেশ কিছু দিন থেকে মোতাহার, লিটন গংরা ওই মসজিদে তাদের নামাজ পড়তে বাঁধা ও হুমকি দিয়ে আসছিল। গত শনিবারও মসজিদে মুসল্লিরা নামাজ পড়েছেন। কিন্তু পরের দিন সকালে এলাকাবাসী মসজিদে চালবিহীন খুটিগুলি গুঁড়ানো অবস্থায় দেখতে পায় । পরে এ ঘটনায় ধামরাই থানায় দেওয়ান মোতাহার হোসেনকে প্রধান আসামী করে জ্ঞাত ১৮ জন ও অজ্ঞাত নামা আরো ১৫/২০ কে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়। ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, মসজিদ ভাঙ্গার ঘটনায় ইতিমধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদেরও দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মসজিদ ভাঙচুর
আরও পড়ুন