Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৯, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৪ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

ডেমোক্র্যাটরা লিখে দিয়েছে মুলারের প্রতিবেদন : ট্রাম্প

রয়টার্স ও ইপসোস-এর জরিপে ট্রাম্পের রেটিং কমেছে ৩ শতাংশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলারের তদন্ত প্রতিবেদনের কঠোর সমালোচনা করেছেন দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রবার্ট মুলারের এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, দফায় দফায় তার তদন্ত বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছিলেন ট্রাম্প। তবে শুক্রবার টুইটারে দেওয়া পোস্টে তিনি দাবি করেন, প্রকৃতপক্ষে মুলারের ওই প্রতিবেদন লিখে দিয়েছে ডেমোক্র্যাটরা। ট্রাম্প বলেন, উন্মাদ মুলারের প্রতিবেদনে কিছু ব্যক্তি আমার ব্যাপারে বিবৃতিটি তৈরি করেছে। এটি ট্রাম্প বিদ্বেষী ১৮ জন ক্রুদ্ধ ডেমোক্র্যাটের লেখা, যা মনগড়া ও পুরোপুর অসত্য। স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুলারের প্রতিবেদনে তার তদন্ত বাধাগ্রস্ত করতে ট্রাম্পের প্রচেষ্টার ১১টি ঘটনা উল্লেখ করা হয়েছে। প্রতিবেদনে ট্রাম্পের এ ধরনের কর্মকান্ডকে অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করে একে বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে কংগ্রেসের প্রতি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। অপর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুলারের তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর জনপ্রিয়তা কমেছে ট্রাম্পের। মুলারের এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, দফায় দফায় তার তদন্ত বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রয়টার্স ও ইপসোস-এর জরিপে দেখা গেছে, এ প্রতিবেদন প্রকাশের পর ট্রাম্পের গ্রহণযোগ্যতা কমেছে তিন শতাংশ। ১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত এ জরিপ চালানো হয়। রবার্ট মুলারের ৪৪৮ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর জাতীয় পর্যায়ে এটিই এ ধরনের প্রথম জরিপ। যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে অনলাইনে এ জরিপ পরিচালনা করা হয়েছে। এক হাজার পাঁচজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি এতে অংশগ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে ৯২৪ জন মুলারের তদন্ত প্রতিবেদন সম্পর্কে অবগত। জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে, প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ৩৭ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ। এর আগে গত ১৫ এপ্রিল পরিচালিত জরিপে এ হার ছিল ৪০ শতাংশ। তবে এর আগের জরিপে এ হার ছিল ৪৩ শতাংশ। মুলারের ‘প্রতিবেদনে ট্রাম্পের প্রচারণা দলে থাকা ব্যক্তিদের একাংশের সঙ্গে রুশ সরকারের প্রতিনিধিদের বেশকিছু সংযোগ খুঁজে পাওয়া গেছে। তবে প্রাপ্ত আলামত ট্রাম্প শিবিরকে অপরাধী প্রমাণের ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত নয়। ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির যে রুশ সরকারের সঙ্গে নির্বাচনি হস্তক্ষেপের ষড়যন্ত্রে জড়িত ছিল কিংবা এ সংক্রান্ত সহযোগিতা দিয়েছে, তা তদন্তে প্রতিষ্ঠা করা যায়নি। মুলার বলেছেন, ‘আমার যে-টুকু আইনি স্বাধীনতা ছিল,তাতে রুশ হস্তক্ষেপের সঙ্গে ট্রাম্পের প্রচারের সম্পর্ক ছিল কি না, বলা সম্ভব নয়।’ মুলার বলেছেন, ‘তদন্তকারীদের সামনে এমন কিছু কঠিন পরিস্থিতি ছিল যার ফলে সত্যিই বলা মুশকিল যে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রুশ হস্তক্ষেপ বিষয়ে তদন্তে বাধা দিয়েছিলেন কি না। কংগ্রেস চাইলে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তদন্ত চালিয়ে যেতে পারে।’ রয়টার্স, সিএনএন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ট্রাম্প


আরও
আরও পড়ুন