Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২০ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

বিএনপি চলছে যৌথ নেতৃত্বে ছাত্র ফোরামের সভায় মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

বেগম খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর থেকে বিএনপি যৌথ নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আমরা আনন্দের সাথে বলতে চাই, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর আমরা একটা যৌথ নেতৃত্ব গড়ে তুলেছি। সেই যৌথ নেতৃত্বের মধ্য দিয়ে সমস্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে আমরা সেই জনগণের কাছে যাচ্ছি। এভাবে দল পরিচালনার মাধ্যমে আমরা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনেও সফল হবো। 

গতকাল (সোমবার) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এবং বর্তমান ছাত্র ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, জনগণকে সাথে নিয়ে, জনগণকে আন্দোলনে সম্পৃক্ত করে আজকে আমাদেরকে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে। আসুন, আমরা একসাথে একটি গণআন্দোলন সৃষ্টি করি, যে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আমরা দেশনেত্রীকে মুক্ত করব, গণতন্ত্রকে মুক্ত করব, তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারব। এই লক্ষ্য অর্জনে ছাত্র সমাজকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
তিনি বলেন, আজকে ছাত্র বলুন, তরুণ বলুন, যুবক বলুন, তাদের সবার ওপর মহান দায়িত্ব এসেছে। সেই দায়িত্ব হচ্ছে এদেশকে রক্ষা করবার জন্য, গণতন্ত্রকে রক্ষা করবার জন্য, আমাদের গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রীকে মুক্ত করবার জন্য, তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
বর্তমানে দেশে সঙ্কট চলছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, লক্ষ্য করলে দেখবেন, রাষ্ট্রের সমস্ত যন্ত্রগুলোকে ব্যবহার করা হচ্ছে। বিচার বিভাগ, প্রশাসন থেকে শুরু করে এমনকি মিডিয়া পর্যন্ত এর হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না। সেজন্য আজকে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে সচেতনভাবে মানুষের অধিকারগুলো কেড়ে নিয়ে, গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়ে রাষ্ট্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ভেঙে দিয়ে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার আগে বারবার বলে গিয়েছিলেন, দল-মত নির্বিশেষে গণতন্ত্রকে রক্ষা করার জন্য, মানুষের অধিকার রক্ষা করার জন্য আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
শ্রীলঙ্কায় হামলার নিন্দা: শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় বোমা হামলার নিন্দা জানিয়ে এতে প্রায় তিনশ মানুষের প্রাণহানিতে শোক প্রকাশ করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, এই ধরনের হত্যাকান্ড, এই ধরনের টেরোরিস্ট এ্যাক্টিভিসকে আমরা নিন্দা জানাই, প্রতিবাদ করি। এর বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে একটি আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
এসময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রনেতা ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমানউল্লাহ আমান, কেন্দ্রীয় নেতা আসাদুজ্জামান রিপন, খায়রুল কবির খোকন, শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, আনিসুর রহমান খান খোকন, আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল প্রমূখ। এই অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে বিএনপি মহাসচিব কাকরাইলে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খানকে দেখতে যান। তার সঙ্গে ছিলেন এজেডএম জাহিদ হোসেন ও সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ