Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

তৃতীয় দফায় কংগ্রেস-তৃণমূল সংঘর্ষে মুর্শিদাবাদে নিহত ১

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ এপ্রিল, ২০১৯, ৫:১১ পিএম

ভারতে এবারের লোকসভা ভোটে প্রাণ গেল পশ্চিমবঙ্গে। তৃতীয় দফার ভোটে মুর্শিদাবাদের রানিতলা বালিগ্রামে ভোটকেন্দ্রের সামনেই সংঘর্ষ বাঁধে কংগ্রেস ও তৃণমূলের মধ্যে। সেখানেই ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন টিয়ারুল আবুল কালাম। সংঘর্ষে গুরুতর আহত হলে হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয় তার। পুরো ঘটনার রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

জানা গিয়েছে, রানিতলা বালিগ্রামের ওই কেন্দ্রে কংগ্রেস ও তৃণমূলের মধ্যে ঝামেলার সময় বাঁশ, লাঠি দিয়ে একপক্ষ অপরপক্ষকে আক্রমণ করে। নিজের ছেলেকে নিয়ে ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন পিয়ারুল। সেই সংঘর্ষের মাঝে পড়ে তিনিও ব্যাপক আহত হন। কিছু সময় পরেই তার মৃত্যু হয়। ওই ঘটনায় আহত হয় আরও ৪ জন। ভোট সন্ত্রাস ছড়াতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ কংগ্রেসের। তৃণমূলের দাবি, এই ঘটনা কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল।

এদিকে, বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত তপন বিধানসভা এলাকায় বজরা পুকুর স্কুলের ১৪৮ নম্বর বুথ দখলের অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন বিজেপি সমর্থক মন্টু রায়। তার উপর ১৫ থেকে ২০ জন দুষ্কৃতী চড়াও হয় বলে অভিযোগ। আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে ভয় দেখানো হয়, বন্দুকের বাট দিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, বেলা ১টা পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে ভোট পড়েছে ৫২.৩৭ শতাংশ। তার মধ্যে বালুরঘাটে ভোট পড়েছে ৫৬.১৬ শতাংশ, মালদহ উত্তরে ৪৯.৭৭ শতাংশ, মালদহ দক্ষিণে ৫০.৪৪ শতাংশ, জঙ্গিপুর ৫২.৮২ শতাংশ এবং মুর্শিদাবাদে ৫০.৩২ শতাংশ।

নদিয়ায় তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য তারক মৈত্রের বাড়ির সামনে এক ব্যাগ দেশি বোমা উদ্ধার করল শান্তিপুর থানার পুলিশ। মুর্শিদাবাদের সুতিতে পুলিশের তাড়ায় গরম পানি পড়ে আহত দুই শিশু। বুথের বাইরে জটলা দেখে তাড়া করেছিল পুলিশ। তখনই এই ঘটনা। বালুরঘাটের গঙ্গারামপুরে মহিলা ভোটারদের মারধর করার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। নয়াবাজার গোপালপুর এলাকার ঘটনা।

মালদহ উত্তর কেন্দ্রে তৃণমূল এজেন্টের গাড়িতে ঘুরতে দেখা যায় মহম্মদ ইয়াসিন নামে দুষ্কৃতীকে। মহম্মদ ইয়াসিন বাহারাল, রাতুয়া, কাহালার বুথ দখলের চেষ্টা করে বলে অভিযোগ কংগ্রেসের।

ইটাহার এবং ইংরেজবাজারে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ। ইটাহারে অভিযোগ করেন তৃণমূল জেলা সভাপতি অমল আচার্য। মহকুমা শাসকের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। খতিয়ে দেখার আশ্বাস প্রশাসনের। মুর্শিদাবাদের হুরশি এবং লোচনপুরে তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিরোধীদের সংঘর্ষ, আহত ৩।

ডোমকলের টিকটিকিপাড়ার ২২ নম্বর বুথের সামনে ব্যাপক বোমাবাজি হয়েছে বলে খবর। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশের বিশাল বাহিনী। মালদহ উত্তর, চাঁচলেও ব্যাপক বোমাবাজি করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলল সিপিএম।

দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমন্ডিতে মধ্যেই বচসা সিপিএম এবং তৃণমূল এজেন্টের। বিজেপি সমর্থকদের ভোটদানে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তৃণমূলের পোলিং এজেন্টের বিরুদ্ধে। এক বিজেপি সমর্থক জখম হয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিজেপির পোলিং এজেন্ট।

ভোটারকে কে বুথে নিয়ে যাবে তা নিয়েই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ তৃণমূলে। সংঘর্ষে জখম এক মহিলা-সহ ৩ জন। কালিয়াচক ৩ নম্বর ব্লকে। আহতদের গোপালগঞ্জ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করানো হয়েছে।

মুর্শিদাবাদের কুমরিপুরে গুলি চালানোর অভিযোগ। কংগ্রেসের পোলিং এজেন্টকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছে। তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ কংগ্রেসের। অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

মালদহ উত্তরের ১৭৯ নম্বর বুথ তৃণমূলআশ্রিত দুষ্কৃতীরা দখল করে রেখেছে বলে অভিযোগ। ৭৪ নম্বর থেকে ৭৯, ৮১ থেকে ৮৯ এবং ৯২ ও ৯৩ নম্বরও বুথও তৃণমূলের দখলে, অভিযোগ সিপিএমের।

ভোটারদের ভোট দিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে মুর্শিদাবাদের ডোমকলে। অভিযোগ, তৃণমূল কাউন্সিলের স্বামী সেটাই আটকাতে গিয়েছিলেন। তখনই তার উপর লাঠি, বাঁশ দিয়ে হামলা করা হয় বলে অভিযোগ। তার মাথায় আঘাত লাগে। সঙ্গে থাকা এক সহকর্মীও হামলায় জখম হন। তাঁদের দু’জনকেই ডোমকল মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে বহরমপুর মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন এই ঘটনায় রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে।

লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফায়, মঙ্গলবার বাংলায় ভোট পাঁচ আসনে। ওই পাঁচের মধ্যে মালদহ উত্তর ও দক্ষিণ এবং জঙ্গিপুর রয়েছে কংগ্রেসের হাতেই। মুর্শিদাবাদ কেন্দ্রে গত বার জয়ী হয়েছিল সিপিএম। এই পর্বে একমাত্র দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটই রয়েছে তৃণমূলের দখলে। রাজ্যে ‘৪২-এ ৪২’-এর লক্ষ্যপূরণ করতে তাই এই পর্বে বিশেষ নজর শাসক দলের।

উল্লেখ্য, বাংলার পাঁচটি ধরে ভারতের ১১৭টি কেন্দ্রে ভোট হয় মঙ্গলবার। এই দফায় উল্লেখযোগ্য প্রার্থীদের মধ্যে আছেন গুজরাতের গান্ধীনগরে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এবং কেরালার ওয়াইনাডে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ভোটার তালিকাতেও থাকছেন একাধিক ‘হেভিওয়েট’ রাজনীতিক। গান্ধীনগর কেন্দ্রে সকালে ভোট দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিজেপির প্রবীণ নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী, শাহ নিজে এবং অরুণ জেটলিরও গুজরাতেই ভোট দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারতের নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ