Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২০ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

ওয়াজিরিস্তানে অসন্তোষের জন্য অর্থ যাচ্ছে বাইরে থেকে -ইমরান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ এপ্রিল, ২০১৯, ১:৫৪ পিএম
অসন্তোষ সৃষ্টির দিকে যুব সমাজকে ঠেলে দিতে ওয়াজিরিস্তানে অর্থ যাচ্ছে বিদেশ থেকে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এ অভিযোগ করে বলেছেন, ওই অঞ্চলে কর্মকান্ড চালাচ্ছে এমন কিছু লোকজন বিদেশী অর্থ পাচ্ছে। স্থানীয়রা যে সমস্যা মোকাবিলা করছেন তার ওপর ভিত্তি করে কিছু মানুষ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে তিনি পখতুন তাহাফুজ মুভমেন্টের (পিটিএম) দিকে ইঙ্গিত করেছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন ডন। 
 
ইমরান খানের ভাষায়, এসব মানুষ বিদেশ থেকে অর্থ পাচ্ছে। আর দুর্নীতিতে জড়িত যেসব নেতা তারা তাদেরকে মামলা থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য তাদেরকে সমর্থন দিচ্ছে। বুধবার ওয়ানা স্পোর্টস কমপ্লেক্সে এক জনসভায় ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।
 
সম্প্রতি পখতুন তাহাফুজ মুভমেন্টের উদ্দেশ্যকে অনুমোদন দিয়েছেন ইমরান। কিন্তু নেতারা যেভাবে তাদের মামলাগুলোকে উপস্থাপন করছেন তার নিন্দা জানিয়েছেন তিনি। পখতুন তাহাফুজ মুভমেন্ট ওয়াজিরিস্তানের যুব সমাজের কাছে বেশ জনপ্রিয়। এই ওয়াজিরিস্তান হলো তেহরিকে তালেবান পাকিস্তানের জন্মের স্থান। এখানেই পিটিএম এক সপ্তাহ আগে মিটিং করেছে। বুধবার সেই একই ভেনুতে মিটিং করলো ক্ষমতাসীন পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ। এতে যোগ দেন পিটিআইয়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। উপস্থিত ছিলেন খাইবার পখতুনখাওয়ার মুখ্যমন্ত্রী মাহমুদ খান ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারভেজ খাত্তাক। 
 
এদিন ইমরান খান বড় রাজনৈতিক দলগুলোর নেতাদের সমালোচনা করেন। বিশেষ করে তার সমালোচনা ছিল সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ ও বেনজির ভুটোর পাকিস্তান পিপলস পার্টির নেতাদের নিয়ে। ইমরান অভিযোগ করেন, শরীফ পরিবার, আসিফ আলী জারদারি, বিলাওয়াল ভুট্টো ও অন্য দুর্নীতিবাজ নেতাদের একটি অভিন্ন এজেন্ডা আছে। তা হলো তাদের দুর্নীতি ক্ষমা করে দিতে সরকারের ওপর চাপ। তবে কোনো দুর্নীতিবাজই রেহাই পাবে না বলে তিনি হুঁশিয়ারি দেন। তিনি বলেন, গত ১০ বছরে পিপিপি ও পিএমএলএন ২৪ ট্রিলিয়ন রুপি ঋণ করেছে। 


 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইমরান খান


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ