Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

শিশু-বয়ষ্করা তীব্র গরমে বেশি কাহিল

নুর হোসেন ইমন | প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

বাংলা বছরের প্রথম মাস গ্রীষ্মের গত কয়েকদিনে সূর্যের তাপ যেন প্রকৃতিতে আগুন ঝরাচ্ছে। পছন্ড গরমে গত ১ সপ্তাহে স্থবির জনজীবন। গরমের কারণে জনদূভোর্গের পাশাপাশি ছড়াচ্ছে মওসুমি রোগ বালাই। এর সবচেয়ে বেশি শিকার হচ্ছে শিশু ও বয়স্করা। ডায়রিয়া, ব্রংকিউলাইটিস, নিউমোনিয়া, জ্বরসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন অনেকে। আর কিশোর কিশোরী ও মধ্যবয়ষ্করা ভোগছেন মাথাব্যাথাসহ নানান সমস্যায়। পানিবাহিত রোগীর পাশাপাশি বাড়ছে ভাইরাসজনিত রোগীর সংখ্যাও।
গ্রীষ্মের মৌসুমের শুরুতে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর হার সাম্প্রতিক কয়েক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। আক্রান্তের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠ হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। ঢাকা শিশু হাসপাতালসহ অন্যান্য হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি রোগী ভর্তি হওয়ায় চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে বিভিন্ন শিশু ও বিষেশায়িত হাসপাতাল। রোগী ও স্বজনরা বলছেন, গরমের কারণে বিভিন্ন খাবার খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়া রোগীর সংখ্যা বেশি। ডায়রিয়া থেকে সতর্ক থাকার পরও শিশুদের এর হাত থেকে রক্ষা করা যাচ্ছে না।
চিকিৎসকরা বলছেন, বিরূপ আবহাওয়ার কারণে শরীরে ঘাম শুকিয়ে সর্দি, কাশি ও নিউমোনিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিচ্ছে। আবার দূষিত পানি পান ও নষ্ট খাবারের কারণে দেখা যাচ্ছে ডায়রিয়া জাতীয় পানিবাহিত রোগ। প্রচন্ড গরমে শিশু ও বৃদ্ধদের ডায়রিয়ায়সহ অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকলেও শঙ্কামুক্ত নন অন্যান্যরা। এ থেকে বাঁচতে পর্যাপ্ত পরিমাণ বিশুদ্ধ পানি ও স্যালাইন খাওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের। ৎ
এদিকে চট্রগ্রাম অঞ্চলে ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে শিশুদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালসহ নগরীর অন্যান্য হাসপাতালসহ অন্যান্য হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডগুলোতে তিল ধারণের ঠাঁই নাই। চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান ডা. প্রণব কুমার চৌধুরী বলেন, ওয়ার্ডে ধারণ ক্ষমতার চাইতে চারগুণ বেশি রোগী ভর্তি আছে। নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন ৫০ থেকে ৭০ জন করে শিশু ভর্তি হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন