Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ সফল হয়নি প্রযুক্তিগত ব্যর্থতায়

ভারতীয় বিমান বাহিনীর রিপোর্ট

নিউজ রিপাবলিক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

পাকিস্তানের ‘জঙ্গী স্থাপনা’ ধ্বংসে চালানো বিমান হামলা এবং তাদের সাথে পরবর্তী বিমান যুদ্ধে পুরোপুরি সফলতা না আসার কারণ, প্রযুক্তিগতভাবে ভারতের পিছিয়ে থাকা। ভারতের বিমান বাহিনীর করা এক প্রতিবেদনের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম।
গত ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানে বালাকোটে একটি সন্দেহভাজন জিহাদী প্রশিক্ষণ ক্যাম্পে চালানো বিমান হামলা ও এর পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের সাথে বিমান যুদ্ধ নিয়ে ভারতীয় বিমানবাহিনীর করা মূল্যায়ন প্রতিবেদনে দাবি করা হয় তারা তাদের পাকিস্তানি প্রতিপক্ষদের গুরুতর ক্ষতি করতে সক্ষম হতো, যদি তাদের হাতে আরো উন্নত প্রযুক্তির অস্ত্র থাকত।
যদিও প্রতিবেদনে খোলাখুলিভাবে বিষষটি স্বীকার করা হয়নি, বরং সাবধানতার সাথে বলা হয়েছে যে, তাদের প্রযুক্তিগত সামর্থ্য বেশী থাকত তাহলে তারা প্রতিপক্ষকে আরো কার্যকরভাবে মোকাবেলা করতে সক্ষম হতো।
প্রতিবেদনে আইএএফ (ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স)-এর যুদ্ধ দক্ষতাকে বাধাগ্রস্ত করার কারিগরি বিষয়গুলি একটি তালিকা দেয়া হয়েছে। প্রথমেই আছে বর্তমানে ব্যবহৃত হার্ডওয়্যারের সাথে নতুন অস্ত্রগুলো সংহত করার সমস্যা, জঙ্গি বিমানগুলোর মধ্যে একটি মিসাইল ছুঁড়তে পারেনি ন্যাভিগেশন সিস্টেমের সমস্যার কারণে। এই ইস্যুটি পূর্ববর্তী একটি রিপোর্টে তুলে ধরা হয়েছিল, যেখাানে প্রতিপক্ষের যান ধ্বংস করতে যেয়ে ভারত নিজের একটি হেলিকপ্টার মিসাইল ছুঁড়ে নামিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পরেছিল।
সর্বশেষ পর্যালোচনাতেও উল্লেখ করা হয়েছে যে, ১৯৯৯ সালের কারগিল যুদ্ধের পর পাকিস্তান ‘তার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্তা এবং আক্রমণ ক্ষমতাগু ক্রমবর্ধমানভাবে বাড়িয়ে তুলছে,’ উদাহারণ হিসেবে তাদের এফ -১৬ যুদ্ধ বিমান ভারতের পুরানো বিমানগুলো থেকে অনেক আধুনিক।
বিমান বাহিনীর এক সূত্র ইকোনমিকস টাইমসকে জানায়, ‘আমরা বুঝতে পেরেছি আমরা প্রতিপক্ষকে যথাযথভাবে মোকাবেলা করতে পারিনি। তাই আমাদের প্রযুক্তিগত সামর্থ্য জোরদার করতে হবে যাতে শত্রু সীমান্তের কাছাকাছি আসতে সাহস না করে।’



 

Show all comments
  • Riajul Islam Riaj ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
    আল্লাহ হেফাজত কর৷ মুসলীমরা কখনো সন্ত্রাস নয় , মুসলমানরা আঘাতের পর প্রতিঘাত করে মাত্র ৷
    Total Reply(0) Reply
  • Rubayed Hossen Fahim ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
    আমাদের বিমান বাহিনীর অবস্থা নিয়েও পোস্ট করুন! ৮টা মিগ-29 আর ৩৭টা এফ-7 দিয়ে আর কতদিন ? মায়ানমার শু-30 নিচ্ছে ৬টা! আবার জেএফ-17 ১৬টা, মিগ-29 ১২টা, এফ-7 ২১ আছে। মিডিয়াম রেন্জের এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমও রয়েছে! এখন যদি ওরা আমাদের ওপর এয়ার স্ট্রাইক চালায় তবে আমাদের চেয়ে চেয়ে দেখতে হবে। সামান্য এফএম-90 দিয়ে আমরা বড়জোড় ২-৪টা হ্যালিকপ্টার শাট ডাউন করাতে পারবো। তাই নতুন যুদ্ধবিমান ও এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম নেয়া জরুরি!
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rafiqul Islam Raju ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
    আমাদের সরকারের উচিত আধুনিক অস্ত্র দিয়ে সামরিক বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধি করা শুধু উন্নয়ন উন্নয়ন করে লাভ হবেনা সামরিক শক্তিতে ও উন্নয়ন জরুরি নইলে দেশের সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে পড়বে।
    Total Reply(0) Reply
  • AhkamulHaque Tipu ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
    Jvabe India Pakistan conflict barse Tate mone hoy gajoya oti sonnikote ja Hadish e bola hoyese j kiamoter purbe Hindustan a gajoyatul hind ba Hindustan e bapok juddho hobe (akhane Hindustan bolte got a upomohadesh k bujano hoyese ) r ate Muslim ra joy lav korbe.presently amont I n.a. holeo prai kaskas I mone hosse pak India conflicts barse bapok vabe.
    Total Reply(0) Reply
  • Abu Noman ২৯ এপ্রিল, ২০১৯, ৯:৩৮ এএম says : 0
    জীবনেও সফল হতে পারবে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ