Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৯ আশ্বিন ১৪২৬, ২৪ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

পদ হারানোর ভয়ে শপথ নিচ্ছেন না মির্জা ফখরুল

বর্ধিত সভায় হানিফ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

মহাসচিব পদ হারানোর ভয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এমপি হিসেবে শপথ নিচ্ছেন না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ। গতকাল সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের খুলনা বিভাগীয় নেতাদের সঙ্গে এক বর্ধিতসভায় তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে খুলনা বিভাগের প্রত্যেক জেলা ও উপজেলায় দলকে সুসংগঠিত করতে এ যৌথসভার আয়োজন করা হয়।
হানিফ আরো বলেন, বিএনপি নিজেদের ভুলে বিলুপ্তির পথে। বিএনপি-জামায়াত দেশের জন্য একটি বিষফোঁড়া। এই ফোঁড়া যতদিন থাকবে দেশের বিরুদ্ধে ততদিন ষড়যন্ত্রও থাকবে। তিনি বলেন, বিএনপির সব কার্যক্রম লন্ডন থেকে পরিচালিত হয়। সেখান থেকে সবুজ সংকেত না মেলায় এবং পদ হারানোর ভয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জাতীয় সংসদে শপথ নিচ্ছেন না।
হানিফ বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ না নেয়ার কারণ হলো লন্ডন থেকে পরিচালিত এই দলে গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। মির্জা ফখরুল দলের বিরুদ্ধে গিয়ে শপথ নিলে পদ হারাবেন। পদ হারানোর ভয়েই তিনি শপথ নেবেন না বলে ঘোষনা দিয়েছেন। হানিফ বলেন, বগুড়া থেকে নির্বাচিত হয়েছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার নিজ এলাকার ভোটারদেও প্রতি দায়বদ্ধতা থাকলেও বগুড়ার ভোটার, এমনকি জনগণের প্রতি তার কোনও দায়বদ্ধতা নেই। তাই তিনি শপথ নিচ্ছেন না।
আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দলের নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, সংগঠন শক্তিশালী হলে অশুভ শক্তির যে কোনও তৎপরতাকে প্রতিহত করা যাবে। সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি পেলে অশুভ শক্তির তৎপরতা লোপ পায়। আর সংগঠনকে শক্তিশালী করতেই আওয়ামী লীগে নিয়মিত কাউন্সিল হয়। জামায়াতে ইসলামীর সংস্কারপন্থী নেতাদের নিয়ে গঠিত রাজনৈতিক মঞ্চের সমালোচনা করে তিনি বলেন, জামায়াতের খোলস পাল্টে নতুনভাবে জামায়াত আসছে। এদের চরিত্র কিন্তু পরিবর্তন হবে না। এ ছাড়াও অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান বলেন, আওয়ামী লীগের অনেক নেতা নিজের দল ভারী করতে জামায়াত-শিবিরসহ বিভিন্ন অনুপ্রবেশকারীদের ঠাঁই দিচ্ছেন, যা আওয়ামী লীগের জন্য অশনিসংকেত। বৈঠকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়–য়া ও কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী সংসদের সদস্য এস এম কামাল হোসেনসহ অন্যান্য কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল


আরও
আরও পড়ুন