Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

বিএনপি ও নেতাকর্মীদের মধ্যে ভর করে আছে পাকিস্তানের প্রেতাত্মা -সিলেটে হানিফ

সম্মেলনে উপস্থিত বিভাগের নেতৃবৃন্দের সাথে রুদ্ধদ্বার বৈঠক

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০১৯, ৯:১৬ পিএম

বিএনপি ও তার দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে পাকিস্তানের প্রেতাত্মা ভর করে আছে, সেকারনে বাংলাদেশের উন্নয়ন চায়না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ। রোববার (৫ মে) সকালে সিলেট নগরীর রিকাবি বাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে আওয়ামীলীগের সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেন তিনি। প্রতিনিধি সম্মেলন পরে নেতাদের সাথে রুদ্ধদার বৈঠক করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি। রবিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে রিকাবীবাজারস্থ কাজী নজরুল অডিটোরিয়ামে এ বৈঠক শুরু হয়। সময় প্রতিনিধি সভায় আমন্ত্রিত নেতৃবৃন্দ ছাড়া সকলকে হল ত্যাগের নির্দেশ দেন হানিফ। শুধুমাত্র বিভাগের ৪ জেলার জেলা-মহানগর-পৌর ও উপজেলা কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এ বৈঠকে অংশ নেন। বেলা সাড়ে ১২টা থেকে এ বৈঠক চলে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। এসময় সিলেট বিভাগের বিভিন্ন ইউনিটের সাংগঠনিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন তিনি। ৪জেলার সভাপতি-সেক্রেটারী সহ সাবেক মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, মাহমুদ উস-সামাদ চৌধুরী এমপি বিভাগের সাংগঠনিক পরিস্থিতি তুলে ধরে সাংগঠনিক ভিত্তি শক্তি করার আহবান জানান তিনি। এছাড়া নেতৃবৃন্দ, সদ্য সমাপ্ত উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিরোধীতাকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমুলক ব্যবস্থা নেয়ার জোর দাবী তোলেন। ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক হানিফ তাদের বক্তব্য শুনে দলীয় চেইন অব কমান্ডের নির্দেশ ভঙ্গকারীদের ব্যাপারে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশ্বাস দেন। এছাড়া বিভাগের বিভিণœ উপজেলা কমিটি মেয়াদোর্ত্তীণ সহ সাংগঠনিক কাঠামো নড়ে বড়ে হয়ে গ্রুপিং, বলয় কেন্দ্রিক দলাদলিতে পড়ে বিশৃংখল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। একই সাথে পদপদবী কুক্ষিগত করে নতুন নেতৃত্বের পথ রুদ্ধ করে দেয়ার বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন বক্তারা।
সুত্র জানায়- দলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের কাছে সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন শফিকুর রহমান চৌধুরী ও আসাদ উদ্দিন আহমদ। এছাড়া বাকি ইউনিটগুলোরও নেতৃবৃন্দও তাদের অবস্থান জানান মাহবুবুল আলম হানিফকে।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের পরিচালনায় সবশেষে সমাপনী বক্তব্য রাখেন মাহবুবুল আলম হানিফ। সমাপনী বক্তব্যে মুজিব বর্ষ উদযাপনের লক্ষ্যে বিভিন্ন স্থানে শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি সংরক্ষিত থাকলে সেগুলো কেন্দ্রে জানানোর নির্দেশ দেন এবং প্রতিটি যায়গায় স্থায়ী পার্টি অফিস নির্মাণের নির্দেশনা দেন। এসময় তিনি আগামীতে দলের তৃণমুল পর্যায় থেকে শুরু করে উপজেলা, জেলা ও মহানগরের সম্মেলন আয়োজনের ব্যাপারে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক।
এদিকে সম্মেলনে মাহবুবুল আলম হানিফ আরও বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান সরাসরি মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অস্বীকার করেন। তাই তারা বহু মুক্তিযোদ্ধা হত্যা, রাজাকারদের পুনর্বাসনের কাজ করছেন।এদেশের মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে সকল আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছে আওয়ামী লীগ। কিন্তু বার বারই আওয়ামী লীগের অবদানকে পিছিয়ে রাখার চেষ্টা করেছে একটি মহল। এবার আর সেই সুযোগ নেই। এবার আওয়ামী লীগকে অতি শক্তিশালী, অপ্রতিদ্বন্দ্বী করার কাজ শুরু করেছেন শেখ হাসিনা।" একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনার কথা উল্লেখ করে হানিফ বলেন, "বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের শক্তিকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে।" সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে আওয়ামীলীগ দেশকে উন্নয়নের রোল মডেলে রূপান্তরিত করেছে বলেও জানান তিনি। আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বলেন, "বাংলাদেশের মানুষ টানা তৃতীয়বারের মত জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের উপর তথা আওয়ামী লীগের আস্থা রেখেছে। এবার আওয়ামী লীগকে জনগণের সেই আস্থার প্রতিদান দিতে হবে।"তিনি বলেন, "আগামী অক্টোবরে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন। এ সম্মেলনের পূর্বে সারাদেশে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন তথা তৃণমূল পর্যায়ে আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করার কাজ শুরু হয়েছে। তৃণমূল থেকে জেলা-উপজেলার সম্মেলনের মাধ্যমে দলকে সংগঠিত করে জাতীয় সম্মেলন আয়োজন করা হবে।" সম্মেলনে সিলেট জেলা-মহানগর, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সুনামগঞ্জ জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং উপজেলা, কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক সহ দলের বিভিন্ন ইউনিটের নেতারা অংশ নেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আওয়ামী লীগ

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ