Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিষেধাজ্ঞা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পারমাণবিক চুক্তি থেকে ইরান আংশিকভাবে সরে আসার ঘোষণা দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নতুন এ ঘোষণা দেওয়া হলো। লোহা, স্টিলসহ ইরানের গুরুত্বপূর্ণ রাজস্ব খাত বলে বিবেচিত কিছু শিল্প পণ্যের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। হোয়াইট হাউসের বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স খবরটি জানিয়েছে। গত সপ্তাহ থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে চরম উত্তেজনা চলছে। ইরানের কাছ থেকে ‘সমস্যাপূর্ণ ইঙ্গিত ও সতর্কতা’র জবাবে মধ্যপ্রাচ্যে বিমান ও বোমা হামলাকারীদের মোতায়েনের ঘোষণা দেওয়ার পর এ উত্তেজনা তৈরি হয়। এরমধ্যেই বুধবার পারমাণবিক চুক্তি থেকে আংশিকভাবে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য দেশগুলোকে সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কবল থেকে সুরক্ষা দিতে না পারলে আরও পদক্ষেপ নেওয়ার হুমকি দিয়েছে ইরান। হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ইরানের লোহা, স্টিল, অ্যালুমিনিয়াম ও কপার খাতে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নির্বাহী আদেশ জারি করেছেন ট্রাম্প। এসব পণ্য ইরান সরকারের অ-পেট্রোলিয়াম খাত থেকে রফতানি রাজস্ব পাওয়ার বৃহত্তর উৎস। দেশটির মোট রফতানি আয়ের ১০ শতাংশ আসে এসব পণ্য থেকে। ট্রাম্প হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘মৌলিকভাবে আচরণ না বদলানো পর্যন্ত তেহরানের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।’ ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশ অনুযায়ী নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসা ইরানি পণ্যগুলো ক্রয়, অধিগ্রহণ, বিক্রি, পরিবহন কিংবা বিপণন নিষিদ্ধ। এসব খাতে ব্যবহৃত হয় এমন কোনও গুরুত্বপূর্ণ পণ্য ও সেবা ইরানকে সরবরাহকারী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকেও যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসতে হবে। ইরানের সঙ্গে এসব ধাতব শিল্প খাতে লেনদেন সংক্রান্ত কাজগুলো শেষ করার জন্য (ব্যবসার সমাপ্তি) প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৯০ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের রাজস্ব বিভাগ। পাশাপাশি হুঁশিয়ার করে বলা হয়েছে, কেউ যদি ৮ মে’র পর থেকে ইরানের সঙ্গে এসব শিল্প পণ্য নিয়ে নতুন ব্যবসা শুরু করে তবে তাকে ব্যবসা সমাপ্তিমূলক কার্যক্রম হিসেবে বিবেচনা করা হবে না। ২০১৫ সালের জুনে তেহরানের সঙ্গে পরমাণু ইস্যুতে ৬ জাতিগোষ্ঠী চুক্তি স্বাক্ষর করে। ভিয়েনায় নিরাপত্তা পরিষদের ৫ সদস্য রাষ্ট্র (পি-ফাইভ) যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন ও জার্মানি (ওয়ান) চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। রয়টার্স।



 

Show all comments
  • Rafiq A Gonj ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    নিষেদাজ্ঞা শুধু মুসলমান দেশ হলে, তাই না। ইছরাইল ন্যায় পথে চলুক। টেনশন করতে হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Monir Hossain ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    আপনাদের কাছে পারমানুবিক অস্র থাকবে কিন্তু ইরানের কাছে দুরপাল্লার খেপোনাস্র থাকতে পারবে না ???
    Total Reply(0) Reply
  • Sopnil Rajib ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    I love you Iran......... I hate you America
    Total Reply(0) Reply
  • Shahidul Alam ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    পাগলা trump বিয়াদব , ইরান শিয়া হলেও মুসলিমের পক্ষে
    Total Reply(0) Reply
  • MD Rafiqul Islam Babu ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    পাগল Tramp কয়দিন N Koria নিয়ে ফালা ফালি করলো,,, এখন পাগলামীর মোড় ঘুড়াইয়া দিছে,,,ইরানের দিকে,,,
    Total Reply(0) Reply
  • এম.এম হাসান ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    ইসলামের অতীত ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায়:-জাগতিক কোন লোভে প্রকৃত মুসলিম কখনো কোন অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেনি।সাব্বাস ইরান!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Saifuddin Islam Saif ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    ৩০ বছরেও যাদের দমানো যায় নি তাদের দমাবে পাগল ট্রাম্প, হা হা হা হা....
    Total Reply(0) Reply
  • Shaheen Tarafder ১০ মে, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    ইরানের হাতে যে পরিমান ক্ষেপনাস্র আছেঐ গুলা ইসরাইলের দিকে তাক করতে হবে তাই আমেরিকা ইরান আক্রমনের সাহস পাবেনা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান


আরও
আরও পড়ুন