Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

বিজেএমসি’কে হারিয়েই জয়ে ফিরল মোহামেডান

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০১৯, ৮:৪৭ পিএম

ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) একাদশ সংস্করণে যেন পথহারা ঐতিহ্যবাহী ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ১২ ম্যাচে মাত্র একটি জয়, তিন ড্র ও আট হারে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তলানীতে থেকে প্রথম লেগ শেষ করলেও অবনমনের শঙ্কায় পড়েছে দলটি। নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে দ্বিতীয় লেগে ঘুরে দাঁড়াতেই হবে মোহামেডানকে। ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে দ্বিতীয় লেগের শুরুতে নিজেদের খুঁজে পেল সাদাকালোরা। দীর্ঘ ১১ ম্যাচ পর জয়ের দেখা পেল তারা। সেই টিম বিজেএমসিকে হারিয়েই কাঙ্খিত জয়ে ফিরল মোহামেডান। এবারের লিগে প্রথম ম্যাচে যাদের বিপক্ষে গত ২০ জানুয়ারি ২-১ গোলের জয় পেয়েছিল ঐতিহ্যবাহীরা। কাকতালীয়ভাবে দ্বিতীয় লেগেও একই ব্যবধানে বিজেএমসি’র বিপক্ষে জয় তুলে নিল মতিঝিলের দলটি।

শুক্রবার নোয়াখালীর শহীদ বুলু স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় লেগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মোহামেডান ২-১ গোলে হারায় বিজেএমসিকে। বিজয়ী দলের হয়ে জাপানিজ মিডফিল্ডার অরিউ নাগাতা ও মালীর ফরোয়ার্ড সোলায়মান দিবেতী একটি করে গোল করেন। বিজেএমসি’র পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন উজবেকিস্তানের ফরোয়ার্ড মকহামিদভ ওটাবেক। এই জয়ে অবনমন শঙ্কা কিছুটা কাটলো মোহামেডানের। তবে পুরোপুরি নিরাপদ অবস্থানে পৌঁছাতে আরো জয়ের প্রয়োজন পড়বে তাদের। ১৩ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে একধাপ উপরে ১১তমস্থানে উঠে আসলো মোহামেডান। সমান ম্যাচে মাত্র ৪ পয়েন্ট পাওয়া বিজেএমসি রইল সবার শেষে। তারা এখন পর্যন্ত একটি ম্যাচেও জয় পায়নি।

দেশের ফুটবলে সব সময়ই ঢাকা আবাহনী ও মোহামেডান চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। কিন্তু পেশাদার লিগে এসে এখন পর্যন্ত নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি মোহামেডান। যেখানে আবাহনী বিপিএলের চারবারের চ্যাম্পিয়ন, সেখানে মোহামেডান একবারও শিরোপার দেখা পায়নি। বিপিএলের প্রথম আসর থেকেই দেখা যাচ্ছে আবাহনী যখন ফি বছর লড়াই করে শিরোপার জন্য। মোহামেডান তখন হা-হুতাশ করে অবনমণ থেকে বাঁচাতে। এবারের লিগেও এর ব্যাতিক্রম হয়নি। তবে অন্যান্যবারের তুলনায় এবার খুব নাজুক অবস্থা সাদাকালোদের। প্রথম লেগে হারতে হারতে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। তাইতো দ্বিতীয় লেগে ঘুরে দাঁড়াতে মধ্যবর্তী দলবদলে ভালো মানের সাত ফুটবলারকে দলে ভিড়িয়েছে তারা। আপাতত নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখাই মোহামেডানের লক্ষ্য। লক্ষ্যপূরণে বিজেএমসি’কে বলির পাঠা বানিয়েছে তারা।

তবে শুক্রবার ম্যাচে প্রথমে এগিয়েছিল বিজেএমসিই। ম্যাচ শুরুর তিন মিনিটেই পাঁচ ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বল নিয়ে মোহামেডান বক্সে ঢুকে দারুণ শটে বিজেএমসির পক্ষে গোল করেন উজবেক ফরোয়ার্ড মকহামিদভ ওটাবেক (১-০)। কিন্তু লিড ধরে রাখতে পারেনি তারা। ম্যাচের ২১ মিনিটেই সমতায় ফেরে মোহামেডান। এসময় নিজেদের ভুলে গোল হজম করে বিজেএমসি। নিজেদের বক্সে ফাউল করে মোহামেডানক পেনাল্টি উপহার দেন বিজেএমসির এক ফরোয়ার্ড। পেনাল্টি থেকে বেশ চাতুরতার সঙ্গেই মোহামেডানের হয়ে গোলটি করেন জাপানিজ মিডফিল্ডার অরিউ নাগাতা (১-১)। সমতায় ফেরার পর এগিয়ে যেতে মরিয়া হয়েই লড়াই করে মোহামেডান। শেষ পর্যন্ত সফলও হয় তারা। ম্যাচের ৬১ মিনিটে দ্বিতীয় গোল পায় সাদাকালোরা। এসময় প্রায় মাঝ মাঠ থেকে স্থানীয় মিডফিল্ডার শেখ গালিব নেওয়াজের পাসে বল পেয়ে তা নিয়ে বিজেএমসি বক্সে ঢুকে পড়েন মোহামেডানের মালীর ফরোয়ার্ড সোলায়মান দিবেতী। দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দারুণ শটে গোল করে দলকে উল্লাসে মাতান

এই ফুটবলার (২-১)। বাকি সময় আর কোন গোল না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত এই ব্যবধানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মোহামেডান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ