Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ২২ জানুয়ারী ২০২০, ০৮ মাঘ ১৪২৬, ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

পারলো না দিল্লি, মুম্বাই-চেন্নাই ফাইনাল

আইপিএল টি-২০

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০১৯, ১২:৫২ এএম

আইপিএলে ২০১২ সালের প্লে অফই সর্বোচ্চ সাফল্য ছিলো দিল্লি ক্যাপিটালসের। এরপর দীর্ঘদিন সাফল্য খরা ছিলো দলটিতে। এ বছরে কিছু পরিবর্তন আনার পর পুরনো ব্যর্থতাকে পেছনে ফেলে আবারও প্লে অফে জায়গা করে নিয়েছিলো তারা। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে তাদের সেই অগ্রযাত্রা থামিয়ে দিয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। চেন্নাই ৬ উইকেটে জিতে মুম্বাইয়ের পর জায়গা করে নিলো ফাইনালে। এটা চেন্নাইয়ের অষ্টম আইপিএল ফাইনাল।  

টস হেরে ব্যাট করতে নামা দিল্লির সংগ্রটা খুব বড় করতে দেয়নি চেন্নাই। ৯ উইকেটে ১৪৭ রানে আটকে রাখে দিল্লিকে। গত ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে দারুণ ইনিংস খেলা ঋষভ পান্ত আজকেও ছিলেন সর্বোচ্চ সংগ্রাহক। তবে ২৫ বলে ৩৮ রানে তাকে বিদায় দিয়েছেন চাহার। কলিন মুনরোর ২৭ রান ছাড়া বাকিদের ব্যাট সেভাবে ঝলসে উঠেনি দিল্লির ইনিংসে।

চেন্নাইয়ের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন দীপক চাহার, হরভজন সিং রবীন্দ্র জাদেজা ও ডোয়াইন ব্রাভো।

জবাবে চেন্নাই শুরুটা করে উড়ন্ত গোছের। দুই ওপেনার ফাফ দু প্লেসিস ও শেন ওয়াটসনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ওপেনিং জুটিতে আসে ৮১ রান। ১১ ওভারে প্লেসিসকে বিদায় দেন বোল্ট। তাতেও আটকানো যায়নি চেন্নাইকে। ৩৯ বলে ৭ চার ও ১ ছয়ে ৫০ রান করেন প্লেসিস।

ওয়াটসনও ৩২ বলে ৫০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে যখন ফিরছেন ততক্ষণে স্কোর ছিলো ২ উইকেটে ১০৯। রায়না ১১ ও ধোনি ৯ রানে বিদায় নিলেও চেন্নাই ঠিকঠাকভাবেই ছিলো জয়ের পথে। শেষ পর্যন্ত ১৯ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইপিএল

২২ ডিসেম্বর, ২০১৯
২১ ডিসেম্বর, ২০১৯
২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ