Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ মে, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

শিরোপা উল্লাসে মাততে শেষ ওভারে প্রয়োজন ৯ রান। ক্রিজে তখনও আস্থার প্রতীক হয়ে অবিচল শেন ওয়াটসন, সঙ্গী রবীন্দ্র জাদেজা। তবে যখন বোলিং প্রান্তে বল হাতে লাসিথ মালিঙ্গা তখনও বাজি পাল্টাতে কতক্ষণ! সেই আস্থার প্রতিদান আগেও দিয়েছেন অনেকবার, এবারও হতাশ করেননি অভিজ্ঞ লঙ্কান পেসার। ৪ রান দূরে থাকতে চতুর্থ বলে দুই রান নিতে গিয়ে রানআউট ওয়াটসন! ৫৯ বলে ৮ চার ও ৪ ছয়ে ৮০ রানে থামেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান।
উত্তেজনার পারদে ঠাসা ম্যাচের ভাগ্য তখনও দুলছে পেন্ডুলামের মত। ফিনিশিং টাচের দায়িত্ব নিতে ক্রিজে নামেন শারদুল ঠাকুর। জোড়া রান নিয়ে ম্যাচের উত্তেজনা গড়ায় শেষ বলে, দরকার ২ রান! কিন্তু মালিঙ্গার এক ইয়র্কারে সেই স্বপ্ন চূর হয় শারদুল এলবিডাবিøউর ফাঁদে পড়লে!
শ্বাসরুদ্ধকর এমন ম্যাচে এক রানের নাটকীয় জয়ে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হলো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। গতকাল রাতে হায়দরাবাদের ফাইনালে তারা গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে তারা জিতেছে শেষ বলে। তাতে রেকর্ড চারবার এই শিরোপা জিতলো মুম্বাই। এর আগে তারা চ্যাম্পিয়ন হয় ২০১৩, ২০১৫ ও ২০১৭ সালে। সবচেয়ে বেশি শিরোপা জয়ে তারা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইকে পেছনে ফেলেছে।
আগে ব্যাট করতে নেমে কায়রন পোলার্ডের ব্যাটে ৮ উইকেটে ১৪৯ রান করে মুম্বাই। এরপর শেন ওয়াটসনের দুরন্ত এক ইনিংসে জয়ের সম্ভাবনা জাগায় চেন্নাই। কিন্তু শেষ ওভারে আর পেরে ওঠেনি তারা। ২০ ওভারে ৭ উইকেটে চেন্নাই করে ১৪৮ রান।
বৃথা গেলো ওয়াটসনের ঝড়ো ইনিংসএর আগে কুইন্টন ডি কক (২৯) ও রোহিত শর্মার (১৫) উদ্বোধনী জুটির ৪৫ রানে দারুণ শুরু করে মুম্বাই। এরপর ১০১ রানে ৫ উইকেট হারানো দলকে টেনে তোলেন হার্দিক পান্ডিয়া ও পোলার্ড। ৩৯ রানের জুটি গড়েন তারা। পান্ডিয়া ১৬ রানে আউট হওয়ার পর দ্রæত উইকেট হারায় মুম্বাই। তবে পোলার্ড ২৫ বলে তিনটি করে চার ও ছয়ে ৪১ রান করে স্কোরবোর্ডে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। শেষ ৫ ওভারে মুম্বাই করে ৪৭ রান।
লক্ষ্য বড় না হলেও ব্যাটিং ব্যর্থতায় বিপদে পড়েছিল চেন্নাই। অবশ্য একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলতে থাকেন ওয়াটসন। ফাফ দু প্লেসি (২৬) ও ডোয়াইন ব্রাভো (১৫) ছাড়া আর কারও কাছ থেকে উপযুক্ত সঙ্গ পাননি তিনি। তারপরও তার ব্যাটে টানা দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখছিল চেন্নাই। কিন্তু দুই বল আগে তার আউটে সেটা ভেঙে যায়। ফাইনাল সেরার পুরস্কার ওঠে জসপ্রীত বুমরাহর হাতে।
এনিয়ে চারবার ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল চেন্নাই ও মুম্বাই। ২০১৩ ও ২০১৫ সালের পর টানা তৃতীয়বার শিরোপার লড়াইয়ে তাদের হারালো মুম্বাই।

এক নজরে
চ্যাম্পিয়ন : মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স
রানার্সআপ : চেন্নাই সুপার কিংস
মোস্ট ভেল্যুয়েবল প্লেয়ার : আন্দ্রে রাসেল
সেরা ব্যাটসম্যান : ডেভিড ওয়ার্নার
সেরা বোলার : ইমরান তাহির
ইমার্জিং প্লেয়ার : শুবমান গিল

 



 

Show all comments
  • mehedulpm ১৩ মে, ২০১৯, ২:৩০ এএম says : 0
    congratulation!
    Total Reply(0) Reply
  • mehedulpm ১৩ মে, ২০১৯, ২:৩০ এএম says : 0
    congratulation!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইপিএল


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ