Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

শ্রীলঙ্কায় ফের মুসলমানদের ওপর হামলা, কারফিউ জারি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ মে, ২০১৯, ৭:০৫ পিএম

শ্রীলঙ্কায় মসজিদ ও স্থানীয় মুসলিমদের বেশ কিছু ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে খ্রিস্টানরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে কয়েকটি স্থানে কারফিউ এবং ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপসহ সামাজিক মাধ্যম ও ম্যাসেজিং অ্যাপস সাময়িক বন্ধ (ব্লক) করে দেওয়া হয়েছে। সোমবার দেশটির কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে বলে খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
দেশটিতে গির্জা ও বিলাসবহুল হোটেলে ভয়াবহ আত্মঘাতী হামলার পর এটিই সবচেয়ে ভয়াবহ সহিংসতা বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।
সূত্রের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়েছে, রোববার দেশটির পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চলের খ্রিস্টান সংখ্যাগরিষ্ঠ চিলো শহরে বেশ কিছু লোক মসজিদে হামলা চালিয়েছে। সেইসঙ্গে মুসলিমদের বিভিন্ন ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘরে হামলা চালায় তারা। এ ছাড়া এক ব্যক্তিকে গুরুতর মারধর করা হয়েছে। ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে ওই সহিংসতার শুরু হয় বলে দাবি করা হচ্ছে।
কর্তৃপক্ষ বলছে, ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। ৩৮ বছর বয়সী আব্দুল হামিদ মোহাম্মাদ হাশমার নামের ওই ব্যক্তি তার পোস্টে লিখেছেন, ‘ওয়ান ডে ইউ উইল ক্রাই’ (একদিন তোমরা কাঁদবে)। এই পোস্টকে হুমকি হিসেবে ব্যাখ্যা করায় সহিংসতা শুরু হয়।
পুলিশের একটি সূত্র রয়টার্সকে বলেছে, কুরুনেগালা জেলায় মুসলিমদের ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানে হামলার অভিযোগে রোববার রাত ও সোমবার সকালে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।
অন্যদিকে, সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র সুমিথ আতাপাত্তু বলেছেন, বৌদ্ধ অধ্যুষিত ওই অঞ্চলের মানুষ আটকদের মুক্তির দাবি জানিয়েছে। তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে পুলিশ রাতে কারফিউ জারি করে।’
শ্রীলঙ্কার মুসলিম কাউন্সিল বলছে, বেশ কিছু মসজিদ ও মুসলমানদের বাড়ি-ঘর ভাংচুর করা হয়েছে। তবে কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিকভাবে আটকের সংখ্যা কিংবা হামলায় ক্ষতির বিষয়টি নির্দিষ্ট করে বলেনি।
প্রসঙ্গত, তিন সপ্তাহ আগে দেশটির কয়েকটি গির্জা ও বিলাসবহুল হোটেলে হামলার পর থেকেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। ওই হামলায় অন্তত আড়াই শ’ লোক নিহত হয়। ওই ঘটনার পর থেকেই দেশটির মুসলিমরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করে আসছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শ্রীলঙ্কা

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ