Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

পীরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অচলাবস্থা

কর্মকর্তার হাতে প্রধান সহকারী লাঞ্ছিত, দরজা ভেঙ্গে উদ্ধার

পীরগাছা (রংপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ মে, ২০১৯, ৮:৫৩ পিএম

অনিয়ম ও দুর্নীতির সহযোগিতা না করায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক। মঙ্গলবার বিকেলে ওই কর্মচারীকে নিজের অফিস কক্ষে দরজা লাগিয়ে উত্তম-মধ্যম দেয়ার সময় অন্যান্য কর্মচারীরা দরজা ভেঙ্গে তাঁকে উদ্ধার করেন। এ ঘটনা নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা দ্বিধা-ভিভক্ত হয়ে পড়ায় প্রশাসনিক ও স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রমে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ঘটনার এক দিন পরও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে কর্মরত চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীরা বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আবু আল হাজ্জাজ দেড় বছর আগে এখানে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকেই তিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটিতে দুর্নীতি ও অনিয়মের স্বর্গরাজ্য কায়েম করে আসছেন। তিনি কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ১৭টি বাসা ভাড়ার টাকা উত্তোলন করলেও মাত্র ৭টি বাসা ভাড়ার টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা করেন। এছাড়াও প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষকের স্বাক্ষর ছাড়াই ইউনিয়ন পরিষদ করসহ বিভিন্ন বিলের টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করে আসছেন। তার এসকল কাজে সহযোগিতা না করায় প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক রফিকুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মচারীদের কারণে অকারণে হয়রানী করে থাকেন। মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ দেয়া প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ৯টি কর বিল স্বাক্ষর করাতে গেলে ডাঃ আবু আল হাজ্জাজ প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষকের নিকট থেকে ৪০ ভাগ করে কেটে নিয়ে বিল দেয়ার জন্য বলেন। এতে অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি তার অফিস কক্ষের দরজা বন্ধ করে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী রফিকুল ইসলামকে চর-থাপ্পর মারতে থাকেন। এসময় ঘটনা টের পেয়ে ৪র্থ শ্রেণীর অন্যান্য কর্মচারীরা দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করেন।
প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক রফিকুল ইসলাম বলেন, অনিয়ম-দুর্নীতির সহযোগিতা না করায় ডাঃ আবু আল হাজ্জাজ তাকে দীর্ঘ দিন থেকে হয়রানী করে আসছেন। সর্বশেষ অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে লাঞ্ছিত করেন। তিনি বিষয়টির তদন্ত কওে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী করেন।
এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আবু আল হাজ্জাজ বলেন, তিনি কোন অনিয়ম-দুর্নীতির সাথে জড়িত নন। প্রধান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক রফিকুল ইসলাম একজন অসুস্থ ব্যক্তি। তিনি তার কক্ষে ঢুকে পাগলামো করতে ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রংপুর

৩০ জানুয়ারি, ২০১৯
২২ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ