Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ওয়াজেদিয়া ওমর ফারুক ইসলামিয়া মাদরাসা দখলদারমুক্ত করার দাবি

সংবাদ সম্মেলনে জুনাইদ বাবুনগরী

চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৬ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

নগরীর বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন ওয়াজেদিয়া ওমর ফারুক আল ইসলামিয়া মাদরাসা ও এতিমখানা অবৈধ দখলদারমুক্ত করার দাবি জানানো হয়েছে। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী এ দাবি জানান।
মাদরাসায় বহিরাগতদের হামলার প্রতিবাদ এবং অবৈধ দখলদারমুক্ত করে পড়ালেখার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার দাবিতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে মহাসচিবের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ওয়াজেদিয়া অনন্যা আবাসিক এলাকা সংলগ্ন ওমর ফারুক আল ইসলামিয়া মাদরাসা ও এতিমখানাটি একজন ধর্মপ্রাণ, জনহিতৈষী ও দানবীর ব্যক্তি ওমর ফারুক ২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এটি আজ অবধি এলাকায় সহীহ কোরআন হাদিস ও ইসলামি শিক্ষার ব্যাপক খেদমত আঞ্জাম দিয়ে আসছে।
সাত শতাধিক এতিম ও দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীর জন্য ফ্রি পড়ালেখা, থাকা-খাওয়া ও চিকিৎসার সুষ্ঠু-সুন্দর বন্দোবস্ত করে আসছে। এটি কওমি মাদরাসাসমূহের সর্বোচ্চ শিক্ষাবোর্ড বেফাকের অন্তর্ভুক্ত। বোর্ডের চেয়ারম্যান ও হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী প্রতিষ্ঠানটির প্রধান পৃষ্ঠপোষক।
আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, গত ১০ এপ্রিল মাদরাসার হিফজ বিভাগের ছাত্র হাবিবুর রহমানের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় আমরা চরমভাবে ব্যথিত হয়েছি। এ হত্যাকাণ্ডে যারাই জড়িত থাকুক সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি করছি। এ ঘটনার পরদিন সকাল সাড়ে ১১টায় কতিপয় বহিরাগত ব্যক্তি দা-ছুরি, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মাদরাসাটিতে অতর্কিত হামলা চালিয়ে অনেক ছাত্র-শিক্ষককে গুরুতর আহত করে এবং মাদরাসা অফিস ও আবাসিক ভবনের তালা ভেঙে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে।
সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের নিয়মিত লেখাপড়ার সুবিধার্থে মাদরাসাটিকে বহিরাগতদের কব্জা থেকে মুক্ত করে কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর, গ্রেফতারকৃত শিক্ষকদের মুক্তি, ছাত্র-শিক্ষকদের উপর হামলাকারীদের গ্রেফতার, বহিরাগত দখলদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানানো হয়। নতুবা মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক, আলেম-সমাজ ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধভাবে যেকোনো কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা সরোয়ার কামাল আজিজী, মাওলানা আলী ওসমান, মাওলানা জান্নাতুল ইসলাম, মাওলানা নাসির উদ্দিন মুনির, মাওলানা জাফর আহমদ, ওমর ফারুক মাদরাসার পরিচালক ও তালিমুল কোরআন কমপ্লেক্সের চেয়ারম্যান মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ তৈয়ব, মুফতি হাসান মুরাদাবাদী, কারী ফজলুল করিম জিহাদী প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন