Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী

আগুন যেন মারিয়াদের অন্তরেও

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

ময়মনসিংহের ধোবাউরা উপজেলার কলসিন্দুর স্কুলে আগুনের ঘটনায় বিস্মিত দেশের নারী ফুটবলাররা। খবরটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন সেই স্কুলে পড়া বয়সভিত্তিক ও জাতীয় ফুটবল দলের খেলোয়াড় মারিয়া, তহুরা, সানজিদারা। সঙ্গে দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও অপরাধীদের শাস্তি দাবি করেছেন নারী ফুটবলাররা। গতকাল বিকেলে বাফুফে ভবনের পাশে কৃত্রিম টার্ফে মারিয়া-সানজিদাদের বিমর্ষ দেখালো। এ খবর শুনে বিস্মিতের পাশাপাশি ভীষণ কষ্ট পেয়েছেন ফুটবলাররা।

সকালে দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের কাছ থেকে এ খবর পেয়েছেন ফুটবলাররা। মারিয়া জানান, ‘কোচের কাছে খবরটা শোনার পর মন খারাপ করছে। আমরা যখন ভালো রেজাল্ট করি তখন আমাদের মেডেল হাতে দেয়া হয়। যারা জুনিয়র তাদের অনেকের ট্রফি, মেডেল, সনদ অফিস রুমে ছিল।’

তবে আগুনের ঘটনায় নারী ফুটবলারদের ব্যক্তিগত সনদ বা মেডেলের কিছু হয়নি বলে জানান তারা। বঙ্গমাতা টুর্নামেন্টের ত্রিপল চ্যাম্পিয়নের দলীয় অর্জনসহ জুনিয়র ফুটবলারদের মেডেল-সনদ পুড়ে গেছে বলে জানান তারা। আগুনের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চেয়েছেন ফুটবলাররা। মারিয়া বলেন, ‘আমরা চাই এর সুষ্ঠ বিচার হোক। তদন্ত হলে দোষীদের বের করা যাবে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা এর বিচার চাই। যারা এমন কাজ করেছে তাদের যেন শাস্তি দেয়া হয়। এস সব ঘটনা ঘঠলে আমাদের জন্য সমস্যা। এমন হলে তো আমরা এগুতে পারবো না। সানজিদা আক্তারের মুখেও শাস্তির দাবি, ‘আমরা ওই স্কুলে পড়েছি। ওই স্কুলের মাঠে অনেক খেলেছি। যে ব্যক্তি এমন জঘন্য কাজ করেছে তাকে সনাক্ত করে যেন শাস্তি দেয়া হয়।’

গতপরশু সকালে স্কুলের অফিস কক্ষে দুর্বৃত্তের আগুন দেয়ার ঘটনা সামনে আসে। সেখানে পুড়ে যায় দেশের নারী ফুটবলে আশার আলো জ্বালানো সাজেদা, রোজিনা, মার্জিয়াদের সনদ ও মেডেল। এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আগুন

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন