Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

প্রশ্ন : আমার বাবার আপন মামার মেয়েকে কি আমি বিয়ে করতে পারব?
উত্তর : পারবেন। কারণ, শরীয়তে চির নিষিদ্ধ ১৪ নারীর তালিকায় এ মহিলা নেই। আপনার বাবার মামা হচ্ছেন আপনার দাদা। তার কন্যা আপনার ফুফু। তার সাথে আপনার কঠিন পর্দা। সামাজিক বিষয় ছাড়া এ মহিলার সাথে আপনার বিবাহ নিষিদ্ধ হওয়ার মতো কোনো সম্পর্ক নেই। সুতরাং এমন ফুফুকে অন্য কোনো বাধা না থাকলে বিয়ে করা যাবে।
প্রশ্ন : যারা অনিয়মিতভাবে নামাজ পড়ে, তাদের ঈমান কোন পর্যায়ে থাকে? নামাজ-কালাম না পড়ে ঈমান আছে বলে দাবী করা কি ঠিক?
উত্তর : আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস স্থাপনের পর ইসলামের সর্বাপেক্ষা বড় ফরজ হলো নামাজ। নামাজ না পড়লে একটা মানুষের ঈমান চরম দুর্বল পর্যায়ে চলে যায়। ইচ্ছাকৃতভাবে নামাজ ছেড়ে দেওয়া একটি ঈমানবিরোধী কাজ। নামাজ-কালাম না পড়ে ঈমান আছে বলে দাবী করা যায় তবে সে ঈমান পূর্ণাঙ্গ হতে পারে না। শরীয়তের কাঙ্খিত ঈমানের জন্য অন্তত: শরীয়তের ফরজ ওয়াজিব আমলসমূহ বিশেষভাবে অপরিহার্য।
প্রশ্ন : শরিয়তের দৃষ্টিতে কোনো কোনো ক্ষেত্রে মিথ্যা বলার অনুমতি রয়েছে?
উত্তর : মিথ্যা বলা কোনো ক্ষেত্রেই অনুমোদিত নয়। শরিয়তে সত্যকে সর্বত্রই উৎসাহিত করা হয়েছে। বলা হয়েছে, সত্য মুক্তি দেয়, মিথ্যা ধ্বংস আনে। সামাজিক আচরণবিধি সম্পর্কিত মাসয়ালা পাওয়া যায় যে, বিবদমান দু’পক্ষের মধ্যে সমঝোতা ও শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং নির্দোষ ব্যক্তির প্রাণ রক্ষার লক্ষ্যে কখনো অপ্রিয় সত্যটি গোপন করা বা অসত্যকে তুলে ধরার অনুমতি রয়েছে। কোনো বৈধ বিষয়কে প্রতিষ্ঠিত করতে বা অধিকার সুরক্ষার জন্য দ্ব্যর্থবোধক বা অস্পষ্ট কথা বলার অনুমতি শরিয়তে রয়েছে। তবে যে কোনো পরিস্থিতিতে সত্য বলাই শরিয়তের মৌল দর্শনের দাবি। 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম


আরও
আরও পড়ুন