Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

সাকিবের জন্য শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

চোটগ্রস্ত বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের চোট নিয়ে বিসিবি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো ঘোষণা না এলেও টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে পাওয়া খবরে মিলেছে স্বস্তি। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, দলের সহ-অধিনায়কের চোট মোটেও গুরুতর নয়। এমনকি একে সাইড স্ট্রেইন বলতেও নারাজ দলের ফিজিও-স্টাফরা।
সাইড স্ট্রেইন বড় ধরনের চোট না হলেও ক্ষেত্রবিশেষে একজন খেলোয়াড়কে সপ্তাহখানেকের জন্য মাঠের বাইরে ঠেলে দিতে সক্ষম। ১৭ মে উইন্ডিজের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ, আর তাই সাইড স্ট্রেইনের শিকার হয়ে থাকলে সাকিবের ফাইনাল খেলার সম্ভাবনা নেই বলেই ধরা যেত। তবে টিম ম্যানেজমেন্টের দাবি, সাকিবের এই চোট সাইড স্ট্রেইনও নয়, এর চেয়েও লঘু। বাংলাদেশি অলরাউন্ডারের চোট যে গুরুতর নয়, সেটি জানিয়েছেন আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজার ও জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, ‘সাকিবের ইনজুরি গুরুতর নয়। তাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। তাকে নিয়ে আমরা ঝুঁকি নিতে চাইনি বলে উঠিয়ে নিয়েছি। আমরা আত্মবিশ্বাসী যে, সে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।’
আর তাই এখনো সাকিবকে মহাগুরুত্বপূর্ণ ফাইনাল ম্যাচের বিবেচনায়ও রাখা হয়েছে। মাংসপেশিতে এখনো ব্যথা থাকলেও দেওয়া হয়েছে আরাম অনুভবের দাওয়াই, যদিও ‘পেইন কিলারের’ মত বেশি মাত্রাত ঔষধ সেবন করতে হয়নি এখনো। গতকাল রাতেও সাকিবের চোটের সর্বশেষ অবস্থা আবারো পর্যবেক্ষণ করেবে দল। তবে তাতেও যদি তাকে পুরোপুরি ফিট হিসেবে পাওয়া না যায়? টিম ম্যানেজমেন্ট সেক্ষেত্রে অপেক্ষা করবে ম্যাচের দিন অর্থাৎ শুক্রবার সকাল (বাংলাদেশ সময় দুপুর) পর্যন্ত। সেই সময়ও যদি সাকিব ফিট হয়ে ওঠেন, তাহলে একই সিরিজে ক্যারিবীয়দের তৃতীয়বার বধ করার জন্য মাশরাফি-তামিমদের সাথে মাঠে নামবেন তিনিও!
ত্রিদেশীয় সিরিজে আয়ারল্যান্ড ও বাংলাদেশের মধ্যকার ওয়ানডে ম্যাচে ব্যাট করতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়েন সাকিব। ম্যাচে বাংলাদেশের ইনিংসের ৩৬তম ওভারে ব্যাট করার সময় হঠাৎ ব্যথা অনুভব করলে মাটিতে শুয়ে পড়েন তিনি। সাথে সাথে মাঠে প্রবেশ করেন টাইগারদের ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহন। ফিজিওর শুশ্রƒষায় খানিক পর সাকিব উঠে দাঁড়ান এবং আবারো ব্যাটিং শুরু করেন। তবে পরের ওভারে অর্ধ-শতক পূর্ণ করার পর মাঠ ছেড়ে চলে যান সাকিব। পরবর্তীতে জানা যায়, অকস্মাৎ আবির্ভূত এই চোটের পর ঝুঁকি এড়াতেই রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।
বোর্ডের বিশ্বস্ত চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী ঢাকায় থাকায় চোট আক্রান্ত সাকিবকে কাছ থেকে দেখেননি। তবে ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহনের মুখ থেকে শোনে তারও দাবি, সাকিবের এই চোট গুরুতর নয়। দেবাশীষ বলেন, ‘দুপুরে দলের সঙ্গে কথা বলেছি। আমার প্রশ্ন ছিল কালকের (আজ) ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়েছে কি না। দল বলল- ছিটকে পড়েনি, তবে তাকে পর্যবেক্ষণে রেখেছে। আজকে (কাল) রাত দেখে কাল (আজ) সকালে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’
সাইড স্ট্রেইন কি না এ ব্যাপারে দেবাশীষ নিশ্চিত না হলেও সাইড স্ট্রেইন হয়ে থাকলে তা থেকে সেরে উঠতে যে বেশ সময় লাগবে তাও জানিয়েছেন। তার দাবি, ‘সাইড স্ট্রেইন কি না তা এখনো নিশ্চিত না। দল বলছে সাইড স্ট্রেইন না। ওরা বলছে মাসল ইনজুরি আছে, কিন্তু সেটা সাইড স্ট্রেইন পর্যায়ে যায়নি। সাইড স্ট্রেইন কিন্তু স্পেসিফিক একটা ইনজুরি। এটা হলে ভালো হতে বেশ সময় লাগে, ২-৩ সপ্তাহ লেগে যায়।’
চোট পাওয়ার পর থেকে বিশ্রামে আছেন সাকিব, ফাইনালের আগের দিন দলের সাথে তাই অনুশীলনও করতে পারেননি। দেবাশীষ আরও বলেন, ‘আমরা যেসব কথা বলছি তা ফিজিওর বরাত দিয়ে। ফিজিওর ভাষ্য হচ্ছে- একদিনে সে কিছু বলতে পারব না। আঘাত লাগলে ১-২ দিন সময় দিতে হয়।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাকিব

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন