Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

মোসাদ্দেক – গালি, মোসাদ্দেক – তালি

ফুয়াদ খন্দকার | প্রকাশের সময় : ২০ মে, ২০১৯, ৫:৫৮ পিএম

এ দেশের মানুষ যে অতিরিক্ত আবেগী এটা মোটামুটি সবার ই বেশ ভালো ভাবেই জানা। এ আবেগের জন্যেই ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে একাত্তরের বিজয় সব কিছুই সম্ভব হয়েছে। এ আবেগের জন্যেই আমরা এখনো গর্ব করে চলতে পারি। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে আমাদের আবেগ টা কেনো যেনো বেশীদিন ধরে রাখতে পারিনা। ক্ষণেক্ষণে এর রং বদল হয়। আজকে যাকে মাথায় তুলে নাচছি হয়তো কালই আবার তাকে রাস্তায় ছুড়ে ফেলো দিবো। আর এ বিষয় টা আর কেউ জানুক বা না জানুক বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলোয়ার রা বেশ ভালো করেই জানেন। কারণ দেশের সব মানুষ এই একটা বিষয়েই দল মত নির্বিশেষে এক হতে পারে যার নাম ক্রিকেট । তাই ক্রিকেটারদের ভালো পারফর্মেন্সে যেমন বাহবা জুটে তেমনি একটু খারাপ খেললেই তাদের চৌদ্দগুষ্টি উদ্ধার করে দেয়া হয়। এবারের বিশ্বকাপের আগেও এর চিত্র বেশ ভালোভাবেই নজরে পরেছে। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর্দা নামতে আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। পরপর কয়েকবার বিভিন্ন ফাইনাল থেকে বাদ পরায় এ বারের বিশ্বকাপ নিয়ে দেশের সকল মানুষের আগ্রহ ও অন্যরকম। তাই সবার চোখ ছিলো এবারের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের দিকে । কিন্তু স্কোয়াডে মোসাদ্দিক আর সৌম্যের উপস্থিতি দেখতে পেয়ে বিসিবির উদ্দেশ্যে তির্যক বাণে ভরে উঠেছিলো সোসাল মিডিয়ার পাতা। শেষ কয়েকটা ম্যাচে ভালো পারফর্ম করতে না পারার কারনেই তাদের কে নিয়ে এত সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছিলো। গতকাল বাংলাদেশ আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাইনাল ম্যাচের আগ পর্যন্ত এরকম টাই সবাই বলছিলো। কিন্তু ফাইনালের এক ঝলকেই আবারো দেশের আপামর জনতার মনে ঠাই করে নিলেন মোসাদ্দেক আর সৌম্য। অল্প সময় আগেই যারা তাদের উদ্দেশ্যে গালি দিচ্ছিলেন সেই তারাই আবার মোসাদ্দেক আর সৌম্য বন্দনায় মুখরিত হয়েছে। গিরগিটিও হয়তো এত দ্রুত রং বদলাতে পারে না যতটা আমরা বদলে থাকি। আমাদের এই অতি আবেগের কারণে খেলোয়ারদের কতোটা খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় তা কেবল তারাই জানেন। তাই সস্তা আবেগে ভর করে সিদ্ধান্ত না নিয়ে খেলোয়ারদের কে তাদের মতো খেলতে দেয়া উচিৎ। 

হয়তো এই মোসাদ্দেক সামনের ম্যাচ খারাপ খেললেই আবারো তার গুষ্টি উদ্ধার করা হবে। এটা যেনো এ দেশের একটা চিরাচরিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ বিষয় টা যে শুধু মোসাদ্দেক অথবা সৌম্যের জন্য প্রযোজ্য এমনটি ভাবার ও কোন কারণ নেই। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার তামিম, মাশরাফি, মুশফিকদের ও এই একই অবস্থার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়।
“কাজেই একটু খারাপ খেললেই গালি আর ভালো খেললেই তালি আর তালি” এ স্বভাব থেকে আমাদের বেড়িয়ে আসা দরকার। খোলায়েরদের সমালোচনা না করে তাদের কে সুযোগ দেয়া উচিৎ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ