Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ভারতের তুরুপের তাস ধোনি : জহির আব্বাস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০১৯, ৫:৫৯ পিএম

মহেন্দ্র সিং ধোনিকে আসন্ন বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের তুরুপের তাস হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক জহির আব্বাস। তার মতে দলের ক্রিকেট ‘মস্তিস্ক’ ধোনি তার বিশাল অভিজ্ঞতার কারণেই বিশ্বকাপে টিম ইন্ডিয়ার তুরুপের তাস হবেন।
ধোনির নেতৃত্বে ভারত ২০০৭ সালে টি-২০ এবং ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয় করে। এছাড়া ২০১০ ও ২০১৬ এশিয়া কাপ ও ২০১৩ চ্যাম্পিয়নশীপের শিরোপাও ভারত জয় করেছে ধোনির নেতৃত্বেই।
স্টাম্পের পিছনে ধোনির দ্রুততা এখনো কার্যকর। তবে তার বিশ্ব সেরা ফিনিশারের ভাবমূর্তি সম্প্রতি কিছুটা ম্লান হয়েছে। তবে আব্বাস বলেন, বিশ্বকাপের মত বড় ইভেন্টে ধোনির অভিজ্ঞতা অনেক বড় হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।
বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে (পিটিআই) আব্বাস বলেন, ‘ভারতীয় দলে আছে মহেন্দ্র সিং ধোনির মত একজন ‘জিনিয়াস’ খেলোয়াড়। তিনি দলের ক্রিকেট মস্তিস্ক। তিনি খেলাটি ভাল বুঝতে পারেন এবং দুইটি বিশ্বকাপ জয়ের অভিজ্ঞতা আছে তার। অধিনায়ক ও কোচের জন্য তার অভিজ্ঞতা অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন হবে এবং তিনি হতে পারেন দলের তুরুপের তাস।’ এশিয়ার ব্র্যাডম্যান খ্যাত আব্বাস মনে করেন, ‘যেহেতু বিরাট কোহলির নেতৃত্বে এটা প্রথম বিশ্বকাপ এবং তিনি দল নেতা হিসেবে প্রমান করতে চাইবেন।’
ইংল্যান্ডের পিচ ভারতীয় ব্যাটিং লাইন আপের জন্য খুবই সহায়ক হবে এবং সেখানে এ ইনিংসে ৪০০ থেকে ৪৫০ রান হতে পারে বলেও মনে করছেন আব্বাস, ‘ সদ্য সমাপ্ত পাকিস্তান-ইংল্যান্ড সিরিজ আমরা দেখেছি। যেখানে তিনশর বেশি রান হয়েছে এবং সেটা পরাজিত হয়েছে। যেহেতু সেখানকার উইকেটে ঘাস নেই তাই বিশ্বকাপে ৪৫০ রান হওয়াও সম্ভব এবং এ ধরনের কন্ডিশন থেকে বোলাররা কোন প্রকার সহায়তা পাবে না। এমন অবস্থায় অন্যতম সেরা ব্যাটিং লাইন আপের দল হওয়ায় ভারত লাভবান হবে।’
ভারতের চার নম্বর পজিশনে কার ব্যাটিং করা উচিত-এ বিষয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। তবে আব্বাসের মতে এতে টপ অর্ডারে খুব বেশি পরিবর্তন হবে না। ১৯৬৯-১৯৮৫ সময়ে পাকিস্তানের হয়ে ৭৮ টেস্ট ও ৬২ ওয়ানডে খেলা অভিজ্ঞ আব্বাস বলেন, ‘এটা অধিনায়কের সিদ্ধান্ত। তবে আমি মনে করি ব্যাটিং অর্ডারের শীর্ষ চার-এ খুব বেশি পরিবর্তন আনা উচিত নয়। আপনি লোয়ার মিডল অর্ডারে পরিবর্তন আনতে পারেন, টপ অর্ডারে নয়।’
আব্বাসের মতে ভারত ছাড়া পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনালে ওঠার যোগ্যতা রাখে।
‘ফর্মেট ও ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার কারণে এবারের বিশ্বকাপে ফিটনেস গুরুত্বপূর্ণ হবে। আমি মনে করি সবচেয়ে ফিটেস্ট দলগুলোই শেষ চার-এ যাবে।’
শেষ মুহূর্তে পাকিস্তান দলে কয়েকটি পরিবর্তন আনার বিষয়ে জানতে চাইলে আব্বাস বলেন, এটাই ‘সম্ভাব্য সেরা কম্বিরেশন’। এ বর্ষীয়ান বলেন, ‘তাদের (পাকিস্তান) এখন ইংল্যান্ডের কাছে সিরিজ হারা ভুলে ভুলে গিয়ে বিশ্বকাপে নজর দেয়া উচিত। তাদেরকে অবশ্যই ফিল্ডিংয়ে উন্নতি ঘটাতে হবে।
বিশ্বকাপে ভারতের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত পাকিস্তান কোন ম্যাচ জিততে পারেনি। এবার কি সে খড়া কাটবে? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘রেকর্ড ভারতের পক্ষে। নিজেদের দিনে পাকিস্তান যে কোন দলকে হারাতে পারে। এটা নির্ভর করবে ভালভাবে চাপ সামলানোর ওপড়। কোন দল জিতবে সেটা কোন বিষয় নয়, এটা হবে টুর্নামেন্টের সেরা ম্যাচ।’
ম্যানচেস্টারে ১৬ জুন মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান। তিনি বলেন, ‘আমার মতে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ অ্যাশেজের চেয়ে অনেক বড় এবং সকল ক্রিকেট ভক্ত পছন্দ করে। আমি সব সময় এ ম্যাচ দেখতে চাই।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্বকাপ ক্রিকেট

১৬ জুলাই, ২০১৯
১৫ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন