Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ সফর ১৪৪১ হিজরী

সক্রিয় অপরাধী চক্র

রাজধানীতে অনুমতিহীন কালো কাচের মাইক্রোবাসে অপহরণ

সাখাওয়াত হোসেন | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

রাজধানীতে নতুনরূপে সক্রিয় হয়ে উঠেছে অপরাধী চক্র। অনুমতিহীন কালো কাঁচের মাইক্রোবাসে অপহরণকারী চক্র তাদের তৎপরতা চালাচ্ছে। এ ছাড়া প্রাইভেটকার বা মাইক্রোবাসে যাত্রী তুলে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে লুটে নেয়া হচ্ছে সর্বস্ব। অপহরনের ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার পুলিশের কাছে অভিযোগ করলেও গাড়িতে তুলে জিম্মি করে সবকিছু কেড়ে নেয়ার ঘটনায় পুলিশের কাছে যাচ্ছেন না ভুক্তভোগিরা। ফলে এসব ঘটনার প্রায় সবগুলোই ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে।
ঘটনায় শিকার কয়েকজন বলেছেন, ভাড়ায় যাত্রী নেয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে দুর্বৃত্তরা সব কিছু লুটে নিয়েছে। প্রাইভেটকার বা মাইক্রোবাস নিয়ে রাজপথে থাকা এসব দুর্বৃত্তদের চেহারা দেখে বোঝার উপায় নেই এরা পেশাদার ছিনতাইকারী বা অপরাধী। কখনো যাত্রী বহনের ছলে টার্গেট করা ব্যক্তিকে গাড়িতে উঠিয়ে নেয়া হয়। আবার কখনো ফাঁকা রাস্তায় জোর করেই গাড়ির মধ্যে টেনে তুলেই টাকা, মানিব্যাগ, মোবাইল ফোন, ব্যাংকে ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড হাতিয়ে নেয় তারা।
অন্যদিকে অনুমতিহীন কালো কাঁচের মাইক্রোবাসে কোথাও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে, কোথাও জোর করে মানুষকে তুলে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে পুলিশ ও বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) দাবি, যেসব গাড়িতে কালো কাঁচ লাগানো হয়, সেগুলো বিআরটিএ থেকে ফিটনেস অনুমতি পায় না। স্বচ্ছ কাঁচের গাড়ির ফিটনেস নিয়ে যারা পরবর্তী সময়ে কালো কাঁচ লাগায়, তাদের বিরুদ্ধে ট্রাফিক পুলিশ ব্যবস্থা নেয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশান-বনানী-বারিধারা, আবদুল্লাহপুর, উত্তরা, কাওলা, বিমানবন্দর সড়ক, মহাখালী, কুড়িল-বাড্ডা-রামপুরা, কাকরাইল, মতিঝিল, কমলাপুর, সায়েদাবাদ, ধানমন্ডি, মিরপুর রোড ও গাবতলী এলাকায় সক্রিয় এসব ছিনতাইকারী চক্র।
তবে গতকাল ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, রাজধানীতে কোনো ছিনতাইকারী নেই। তাদের সকলকে ধরে জেলে পাঠানো হয়েছে। এজন্য ঈদ উপলক্ষে ঢাকাবাসী সবাই রাতদিন কেনাকাটা করে নিশ্চিন্তে বাসায় ফিরছেন।
আইন-শৃংখলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, মিরপুর ও তেজগাঁও থেকে একমাসের ব্যবধানে দুই প্রকৌশলীকে কালো কাঁচের মাইক্রোবাসে তুলে নেয়া হয়। গত ১ এপ্রিল মিরপুর ডিওএইচএস এলাকার কর্মস্থল থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন সফটওয়্যার প্রকৌশলী কামরুল হাসান। আর কম্পিউটার প্রকৌশলী আতাউর রহমান শাহীনকে ২ মে তুলে নেওয়া হয় তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থেকে। প্রথম ঘটনায় পল্লবী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) এবং পরের ঘটনায় তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। দু’টি ঘটনায় অপহরণকারীরা কালো কাঁচযুক্ত সাদা রঙের মাইক্রোবাস ব্যবহার করে।
আতাউর রহমান শাহীনকে তুলে নেওয়ার ঘটনাটি তেজগাঁওয়ের সড়কের সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে। সেখানে দেখা গেছে, শাহীনকে চার জন লোক ধাক্কা দিয়ে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এরপর কালো কাঁচের মাইক্রোবাসটি দ্রæত চলে যায়।
পুলিশের একাধিক কর্মকর্তার মতে, গাড়িতে তুলে নেয়া চক্রের সাথে জড়িতরা ইয়াবা ও ফেনসিডিলসহ বিভিন্ন মাদকে আসক্ত। এই অপরাধী চক্রটি তিনটি আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল ও কমলাপুর রেল স্টেশনের সামনে যাত্রী বহনের জন্য বসে থাকে। টার্গেট করা লোককে গাড়িতে উঠিয়ে ফাঁকা জায়গায় নামিয়ে দিয়ে মালামাল কেড়ে নেয়। এদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আইন অনুযায়ী কালো কাঁচের মাইক্রোবাস নিষিদ্ধ হলেও গাড়ির মালিকরা প্রায়ই স্বচ্ছ কাচ পরিবর্তন করে কালো কাঁচ লাগিয়ে দেন।
মাইক্রোবাসে কালো কাঁচ থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মীর রেজাউল আলম বলেন, কালো কাচের মাইক্রোবাসের বিরুদ্ধে প্রতিদিনই প্রসিকিউশন হচ্ছে। এটি চলমান প্রক্রিয়া।
জানা গেছে, গত মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে রামপুরার বাসা থেকে বের হন ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান। গন্তব্য মতিঝিল। রামপুরা টিভি ভবন থেকে কিছুটা সামনে আসার পর রাস্তায় দাড়িয়ে থাকা একটি মাইক্রোবাস থেকে দু’যুবক নেমে এসে তাকে বলেন, গাড়িতে লোক হয়ে গেছে দু’একজন হলে মতিঝিল চলে যাবে। তিনিও দেখেন ৪জন যুবক গাড়িতে বসে আছে। এ অবস্থায় গাড়ি ভাড়া কত জিজ্ঞাসা করলেও ওই যুবকরা বলেন, এ নিয়ে সমস্যা হবে না। অন্যরা যা দেবে আপনিও তাই দেবেন।
ওই ব্যবসায়ী বলেন, গাড়িতে উঠে তিনি কিছু বুঝতে পারেননি। গাড়িটি যখন মালিবাগ রেলগেট ক্রস করে তখন এদের আসল রূপ ধরা পড়ে। অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তা সাথে থাকা ১০হাজার টাকা নিয়ে একটি গলির মুখে নামিয়ে দিয়ে চলে যায় গাড়িটি। এক প্রশ্নের জবাবে ওই ভুক্তভোগি বলেন, থানায় গিয়ে আরো ঝামেলা। মামলা করা, আদালতে যাওয়া এবং যদি কখনো কেউ ধরা পড়ে তাকে শনাক্ত করতে যাওয়া। কোনটাই জীবনের জন্য নিরাপদ নয়। জীবনের চেয়ে ১০হাজার টাকার মূল্য কখনো বেশি নয় বলে তিনি মন্তব্য করেন।
শাহবাগ এলাকায় গত বৃহস্পতিবার রাতে গাড়ি পার্টির কবলে পড়েন মোজাম্মেল হোসেন। রাত ৮টার দিকে তিনজন যাত্রী নিয়ে একটি সাদা মাইক্রোবাস থেকে একজন মতিঝিল যাবে বলে ডাকছিল। ভাড়া মাত্র ২০ টাকা দিতে হবে বলার পর তিনি গাড়িতে উঠেন। তারপরই তিন যাত্রীবেশী ছিনতাইকারী তাকে জিম্মি করে। একজন পকেট থেকে পিস্তল বের করে বলে, যা আছে দিয়ে নেমে যা। চিৎকার কিংবা কথা বললে সোজা গুলি হজম করতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি মানিব্যাগসহ যা ছিল দিয়ে দেন। এরপর রাজউক এভিনিউ এলাকায় মাইক্রোবাসের দরজা খুলে তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দ্রুত চলে যায়। এ ঘটনায় তিনি মতিঝিল থানায় গেলে পুলিশ ঘটনাটি সাধারণ ডায়রি হিসেবে লিখে রাখে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ