Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

সমঝোতাকারীর ভূমিকায়

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

এক্সিট পোলের জরিপে ক্ষমতাসীন বিজেপি অনেক এগিয়ে থাকলেও তা খুব একটা গুরুত্ব দিচ্ছেন না ভারতের বিরোধী দলীয় নেতারা। বিভিন্ন গ্রুপের রাজনৈতিক দলের নেতাদের মধ্যে ম্যারাথন যোগাযোগ হচ্ছে। উদ্দেশ্য বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলে তাদের করণীয় নির্ধারণ। এর মধ্যে আলোচনায় রয়েছেন মহারাষ্ট্রের রাজনীতিক শারদ পাওয়ার। বিভিন্ন দলের নেতাদের মধ্যে ম্যাচমেকার হিসেবে ভ‚মিকা রাখছেন তিনি।
শারদ পাওয়ার এমন সব দলকে তিনি একসঙ্গে আলোচনায় আনছেন, যারা একপক্ষ অন্য পক্ষের ঘোর বিরোধী। তিনি এরই মধ্যে যোগাযোগ করেছেন কংগ্রেস নেতা জগমোহন রেড্ডি, তেলেঙ্গনা রাষ্ট্র সমিতির নেতা ও মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও, ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে। এরই মধ্যে এসব নেতার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন শারদ পাওয়ার। যদি কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড প্রোগ্রেসিভ এলায়েন্স (ইউপিএ) স্থিতিশীল সরকার গঠন করার মতো আসন পায় তাহলে তাদেরকে সমর্থন করবেন নবীন পট্টনায়েক ও চন্দ্রশেখর রাও। এই প্রতিশ্রুতি তিনি আদায় করতে পেরেছেন। এ ছাড়া চন্দ্রবাবু নাইডুর সঙ্গেও যোগাযোগ করেছেন বর্ষীয়ান রাজনীতিক শারদ পাওয়ার। সম্প্রতি চন্দ্রবাবু নাইডু একই লক্ষ্যে যোগাযোগ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, উত্তর প্রদেশের জোট সঙ্গী ময়াবতী, অখিলেশ যাদব, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ও সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে। মঙ্গলবার তিনি সাক্ষাত করেছেন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারাস্বামী ও তার পিতা সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেবে গৌড়ার সঙ্গে। সূত্র: এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন