Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

ক্ষেপণাস্ত্র এস-৪০০ প্রশিক্ষণে রাশিয়ায় তুর্কি সেনাদল

তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্রের আল্টিমেটামের নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র এস-৪০০ প্রশিক্ষণের জন্য রাশিয়ায় গেছে তুর্কি সেনবাহিনীর একটি দল। এস-৪০ এর লক্ষ্যমাত্রা সর্বোচ্চ ৬০০ কিলোমিটার। যা মিসাইল শনাক্ত ও ধ্বংস করতে পারে ৫ থেকে ৬০ কিলোমিটারের মধ্যে। মঙ্গলবার দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী হুলুসি আকারের বরাত দিয়ে রাষ্ট্রপরিচালিত সংবাদ মাধ্যম আনাদুলি এজেন্সি এ কথা জানায়। তুর্কি প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের জন্য তুরস্ক তার দায়দায়িত্ব সম্পন্ন করেছে। তুরস্ক এই পরিকল্পনা চালিয়ে যাবে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনা এখনো চলছে। হুলুসি আকার বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান, প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা এবং সিরিয়ার পূর্ব ফোরাত নদী নিয়ে আলোচনার উন্নতি হয়েছে। মন্ত্রী আরও বলেন, তুরস্ক মার্কিন তৈরি প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্রের বিষয়টি মূল্যায়ন করেছে। আঙ্কারা এবং ওয়াশিংটন প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্রের মূল্য, প্রযুক্তি হস্তান্তর, যৌথ উৎপাদন এবং সর্বশেষ অফার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আনুষ্ঠানিক আলোচনা করছে। তুরস্ক যখন রাশিয়া থেকে এস-৪০০ আকাশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গ্রহণ করতে শুরু করেছে, তখন যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্কের সঙ্গে উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে। এটি ভূমি থেকে আকাশে ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করতে পারে। অপরদিকে, বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র এস-৪০০ কেনার চুক্তি বাতিলের বিষয়ে তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্র যে চূড়ান্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে তার নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়া। মার্কিন পদক্ষেপকে অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছে রাশিয়া। এদিকে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, আমরা বিষয়টিকে চরমভাবে নেতিবাচক হিসেবে বিবেচনা করছি। আমরা এ ধরনের সময়সীমা বেধে দেওয়ার ঘটনাকে অগ্রহণযোগ্য মনে করি। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তুরস্ককে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত সময় দিয়েছে। এর মধ্যে তুরস্ক রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার চুক্তি বাতিল না করলে দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেবে ওয়াশিংটন। এছাড়াও যদি তুরস্ক রাশিয়া হতে এস-৪০০ গ্রহণ করে তাহলে মার্কিন এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান পাওয়া থেকে বঞ্চিত হবে। তুরস্ক ১০০টি এফ-৩৫ বিমান কেনার অর্ডার দিয়েছে। শুধু তাই নয়, মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সামরিক জোট থেকেও তুরস্ককে বহিষ্কার করা হতে পারে। জানা যায়, বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র এস-৪০০ প্রশিক্ষণের জন্য ইতোমধ্যে রাশিয়ায় গেছে তুর্কি সেনবাহিনীর একটি দল। আনাদোলু, আরটি।

 



 

Show all comments
  • Md Riyadh Hasan Jewel ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩১ এএম says : 0
    লাভ নেই তুরস্ক অবশ্যই কিনবে
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Alom Nazrul ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩২ এএম says : 0
    যুক্তরাষ্ট্র মুসলমানের প্রকাশ্য শত্রু,এদের বিরুদ্ধে মুসলিম নেতৃবৃন্দ সোচ্চার হওয়ার এখনি সময়।
    Total Reply(0) Reply
  • Alamgir Alamgir ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    very good idea
    Total Reply(0) Reply
  • Tunvir Hasan ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩৩ এএম says : 0
    Malhama Hobe. Hadise Asce Mohajuddo r Istanbul bijoi er modde somoi jabe 6 bocor 7th bocor Dazzal attoprokas korbe. Mane Mohajuddo suru hole sobar age dokol Hobe Turosker Istanbul. R seta keno dokol Hobe seta ekon isposto
    Total Reply(0) Reply
  • Murtuza Chowdhury ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩৪ এএম says : 0
    আমেরিকার উপর কোন বন্ধুরাষ্ট্রের আস্হা রাখা উচিৎ নয়। তারা তুরস্কের সাথে যৌথভাবে এফ-৩৫ জঙ্গি বিমান তৈরি করে বিমানের টাকা পয়সা বুঝে নিয়ে এখন বিমান সরবরাহ করতে টালবাহানা করছে। তুরস্ক তাদের সাথে ব্যবসা করেছে, তাদের গোলামীর খাতায় নাম লেখায় নাই। তুরস্ক কার নিকট থেকে অস্ত্র কিনবে তা আমেরিকা নির্ধারণ করে দিতে পারেনা, সেটা তুরস্কের নিজস্ব ব্যাপার। তাদের সাথে বন্ধুত্ব করলে আর শত্রুর প্রয়োজন হয়না।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir Kabir ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    মুসলিম বিশ্বের উচিৎ তুরস্ককে সাহায্য করা।এমন দশটি মুসলিম রাষট থাকলে, মুসলমানদের দুঃখ কিছুটা লাঘব হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Didar Chowdury ২৪ মে, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    আমাদের মুসলিম বিশ্বের নেতা এরদোগান৷ ইনসাল্লাহ একদিন সারাবিশ্বে নেতৃত্ব দিবে৷ আল্লাহ আপনাকে নেক হায়াত দান করুক৷ আমিন৷
    Total Reply(0) Reply
  • alim ৩০ মে, ২০১৯, ১:০৮ পিএম says : 0
    আশা করি তুরস্ক এস-৩৫ কেনার জন্য অগ্রিম টাকা দেইনায়।সৌদি এবং অন্য গালফ দেশ গুলোর এই অস্ত্র গুলা কেনা ওচিত।এটা থাকলে আমেরিকার মাস্তানি পুরা বন্ধ হইয়ে যাবে।আরব দেশগুলার কাসে যে টাকা আসে সেটা দিয়া এইসব অস্ত্র হাজার হাজার কিনতে পারবে। তুরস্ক শুধু এস-৪০০ কিনতাসে না ওরা এটা বানানর টেকনোলজিও হাতে পাচ্চে।এটা তুরস্কএর জন্য বড় সুবিধা দিবে কারন এস-৪০০ আমেরিকার এস-৩৫(আমেরিকার সবচেয়ে উন্নত প্লেন) প্লেন ধংস করতে পারবে এবং মিসাইলও ধংস করতে পারবে। প্লেন আর মিসাইল ছাড়া আমেরিকা কিছু না।মুখামুখি যুদ্ধে আমেরিকা কোন দেশের সঙ্গে পারবেনা,ভিএত্নাম,ইরাক,আফগানিস্থান এর প্রমান। তালিবান দের কাসে এস-৪০০ থাকলে আমেরিকা ৬ মাসের মধ্য আফগানিস্থান থেকে পালাত।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এস-৪০০


আরও
আরও পড়ুন