Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ফেসবুকে খবর পেয়ে শিশুর চিকিৎসা করাচ্ছেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশের সময় : ২৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্ট ঃ চোখ মেলে চিম্বুক পাহাড় আর সবুজ অরণ্যের রূপের খেলা দেখার কথা যে শিশুর, তার চোখের আলো যেন নিভু নিভু। পৃথিবীতে আসার মাত্র এক বছরের মধ্যে চোখের ওপর মস্ত বড় টিউমার বসে তার। শিশুটির বয়স মাত্র ১১ মাস। টিউমারটি ক্রমেই বৃদ্ধি পেয়ে অনেক বড় আকার ধারণ করে। দিশেহারা হয়ে পড়ে শিশুটির পরিবার।
শিশুটির বাবা-মা কৃষি কাজ করে সংসার চালান। চিকিৎসকদের পরামর্শ অপরেশন ছাড়া বিকল্প কিছু নেই। কিন্তু সন্তানের অপারেশন করানোর মতো তাদের নেই কোনো বিশাল সম্পত্তি। নগদ অর্থও। শিশুটির বাবা-মার কাছে থাকা কিছু সম্বল-সম্পত্তি বিক্রি করে বান্দরবান ইম্মানুয়েল ক্লিনিকের মেডিকেল অফিসার ডা. জ্যোতির্ময়ের কাছে নিয়ে যান এবং কিছুদিন চিকিৎসা করেন। কিন্তু সেখানে কোনো পরির্বতন না দেখে বাড়িতে নিয়ে আসে।
একদিকে পাহাড়ি পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী, অন্যদিকে চিকিৎসার বিশাল ব্যয়। সব মিলিয়ে উভয় সংকট এখন সিংরাও-এর সামনে। এ দুই সমস্যায় দিশেহারা শিশুটির পরিবারের কথা ফেসবুকে লেখেন কেউ একজন। তিন-চারদিন আগে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগ ইন করে নিউজ ফিডে মাউস ঘোরাচ্ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। হঠাৎ তার চোখে পড়ে সেই পোস্ট। থেমে যায় মন্ত্রীর চোখ, থেমে যায় তার ঘুরতে থাকা মাউসও।
কী যেন এক আবেদন স্পর্শ করে ওবায়দুল কাদেরের হৃদয়। তৎক্ষণাৎ তিনি সিদ্ধান্ত নেন শিশুটির মুখের হাসি ফেরানোর, সিদ্ধান্ত নেন সুন্দর পৃথিবীর আলোতে শিশুটির দুই চোখ আরও উজ্জ্বল করে তোলার।
তারপর মন্ত্রী সেই পোস্টটির সূত্র ধরে খোঁজ নিতে থাকেন। কিন্তু বান্দরবানের দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় বসবাসরত শিশুটির পরিবারের সঙ্গে সহজে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না। প্রথমে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে চেষ্টা করলেন মন্ত্রী। এরপর মন্ত্রী খোঁজ নিতে থাকলেন থানচির পরিচিত এক ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের মাধ্যমে। খোঁজ পেলেনও তার মাধ্যমে।
এরপরই দেরি না করে চিম্বুক পাহাড়ের টংকাবতির বাগানপাড়ার ¤্রাে সম্প্রদায়ের দম্পতি সিংরাও ম্রো ও পাইং পাউ ম্রো-এর আদরের সন্তান চিং রুং ম্রোসহ তার পরিবারকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসার ব্যবস্থা নেন ওবায়দুল কাদের। এরই মধ্যে সেখানে শুরু হয়েছে শিশুটির চিকিৎসা।
গতকাল (শনিবার) সকালে ঢামেকে সেই মায়ামুখের পাহাড়ি শিশুটিকে দেখতে যান মন্ত্রী। কথা বলেন তার পরিবারের সঙ্গে। পরম স্নেহের হাত বুলিয়ে দেন চিং রুংয়ের মাথায়। এসময় মন্ত্রীর নির্দেশনায় শিশুটির চিকিৎসার জন্য গঠন করা মেডিকেল বোর্ড তাকে জানায়, দেশেই চিং রুংয়ের সুচিকিৎসা সম্ভব। মন্ত্রী তখন পুরো চিকিৎসার ব্যয় বহন করবেন জানিয়ে বোর্ডকে সুচিকিৎসার অনুরোধ করেন। তার এমন মানবিক সাড়ায় সাধুবাদ জানিয়ে অনেকে তখন বলে ওঠেন, মন্ত্রীর এই দৃষ্টান্ত অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়।
ওবায়দুল কাদের তখন জানান, কোনো কিছু নয়, মানবিক আবেদনই তার কাছে বড়। শিশুটি বড় হোক। সুন্দর আগামী রচনা করুক এমনটাই চান তিনি। ঢামেকের বার্ন ইউনিটের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে চিকিৎসাধীন শিশুটির সঙ্গে সেখানে রয়েছে তারা বাবা-মাও। তার চিকিৎসার জন্য গঠিত বোর্ডে আছেন নিউরোসার্জন ডা. রাজিউল হক, নাক কান গলা বিভাগের ডা. আবু ইউসুফ ফকির, প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের ডা. আবুল কালাম আজাদ। ওবায়দুল কাদেরের এই মানবিক সাড়ার খবরটি জানার পর পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর ঊ শৈ সিংও রোববার ঢামেকে আসছেন বলে জানা গেছে।
শহীদ জিয়ার স্মরণে বিএনপির আলোচনা সভা আজ
স্টাফ রিপোর্টার ঃ দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে বিএনপি। আজ রোববার বেলা ২টায় রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে।
আগামীকাল শহীদ জিয়াউর রহমানের ৩৫তম শাহাদাতবাষির্কী। প্রতিবারের মতো এবারো পক্ষকালব্যাপী কর্মসূচি পালন করছে দলটি।
দলীয় বিবৃতিতে জানানো হয়, আলোচনা সভায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ছাড়াও দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের জীবন, কর্ম ও দর্শণ নিয়ে মূল্যবান আলোচনা করবেন। বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীকে যথাসময়ে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে উপস্থিত থাকার জন্য বিবৃতিতে অনুরোধ জানিয়েছেন দলটির সহ-দফতর সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফেসবুকে খবর পেয়ে শিশুর চিকিৎসা করাচ্ছেন ওবায়দুল কাদের
আরও পড়ুন