Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

লম্বা ব্যাটিং লাইনআপেই রোডসের আশা

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৪ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ব্যাটিং অর্ডার ছিল নয়, মাশরাফি মুর্তজা দশে। সাইফউদ্দিন তো ব্যাট হাতে বেশ পটুই, মাশরাফির ব্যাটিং মুন্সিয়ানাও সমাদৃত। অর্থাৎ কেবল মুস্তাফিজুর রহমান ছাড়া একাদশের বাকি সবাই ব্যাট করতে জানেন। বিশ্বকাপেও এমনটি মাথায় রেখে একাদশ সাজানোর কথা জানালেন কোচ স্টিভ রোডস।

বিশ্বকাপের আগে লেস্টারে তিন দিনের ক্যাম্প করেছে বাংলাদেশ দল। গতপরশু ছিল সেই ক্যাম্পের শেষ দিন। কিছুটা ঢিমেতালে চলা এই ক্যাম্পের পর দল গেছে কার্ডিফে। সেখানেই আইসিসির অতিথি হয়ে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ মিশন। ২৬ ও ২৮ মে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তান ও ভারতের সঙ্গে খেলবে বাংলাদেশ। তার আগে কোচ রোডস জানালেন ইংল্যান্ডের উইকেটের মেজাজ মর্জি খুব ভালো বুঝে নিয়েছেন তারা। এখানে জিততে হলে করতে হবে বড় রান কিংবা তাড়া করতে হবে বিশাল কোন চ্যালেঞ্জ।

বোলারদের বধ্যভূমিতে তাই দলের ব্যাটসম্যানদের উপর বেজায় আস্থা কোচের, ‘এখানে উইকেট খুব ভালো। আউটফিল্ডও খুব গতিময়, বল করা তাই খুব কঠিন বিশেষ করে পাওয়ার প্লের সময়। কাজেই আমরাও বড় সংগ্রহ গড়তে পারব, সেটা বিস্ময়কর হবে না। এমন পরিবেশে আগে খেলিনি বলেই বড় স্কোর হতো। গত এক বছর ধরে আমরা প্রচুর খাটছি।ওয়ানডেতে বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে গেছে। আশা করছি এভাবে এটা ধরা রাখা যাবে।’

বড় রান করা বা তাড়া করার মূলমন্ত্র আপাতত লম্বা ব্যাটিং লাইনআপ। সম্প্রতি ডেথ বোলিংয়ে সাইফউদ্দিন দারুণ করায় এখন একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান নিয়ে নামতে পারছে বাংলাদেশ। পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন একই সঙ্গে সামলাচ্ছেন তৃতীয় পেসারের দায়িত্ব। এমনকি মাশরাফির সঙ্গে ইনিংসের শুরু আর মুস্তাফিজের সঙ্গে শেষটায় রাখছেন অবদান। আর এতে একাদশে ব্যাটিংয়ে আনকোরা কেবল একজনই একাদশে জায়গা পাচ্ছেন বলে স্পষ্ট করেছেন রোডস, ‘লম্বা ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে খেলার চেষ্টা করছি। সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যাতে কেবল একজন বোলার থাকে যে ব্যাটিংয়ে অতো পারদর্শী নয়, তিনজন নয়। আমার মনে হয় এটা বড় রান করতে সাহায্য করবে। যখন অনেক বড় রান তাড়া করতে হবে তখন শেষ দিকে তিন-চার ওভারে অনেক উইকেট পড়তে পারে।’

বাংলাদেশ টপ অর্ডার বেশ ভালো পারফর্ম করছে। মিডল অর্ডার দিচ্ছে ভরসা। লেট অর্ডারের তেমন পরীক্ষা না হলেও সেখানে পারফর্মারের ছড়াছড়ি কোচকে দিচ্ছে প্রশস্তি, ‘তেড়েফুঁড়ে মারার সক্ষমতা আছে সাব্বিরের। শেষ ১০ ওভারে প্রচুর রান বাড়াতে পারে সে। যদি ওভারপ্রতি ৭ করে দরকার হয় তাহলে তার বোঝার ক্ষমতা আছে যে কাজটা তাকে শেষ করতে হবে। একই কথা খাটে মাহমুদউল্লাহর বেলায়। মোসাদ্দেক কি করতে পারে আপনারা দেখেছেন। এছাড়া মিরাজ, মিঠুন, সাইফউদ্দিনকে আমরা শেষ পর্যন্ত ব্যাট করতে দেখতে চাই। পাঁচ, ছয়, সাত , আট, নয় এমন পজিশনে তারা খেলবে। মাশরাফিও মারতে পারে।’



 

Show all comments
  • Rakibul Hassan ২৪ মে, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
    আমার মনে হয় বাংলাদেশ দল এখনো তরুণদের সেভাবে পরীক্ষা করতে পারেনি।
    Total Reply(0) Reply
  • সৈকত ফকির ২৪ মে, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
    এরা সবাই অত্যন্ত সাধারণ মানের খেলোয়াড়। এদেরকে তারকা সম্বোধন করা বাড়াবাড়ি।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Haque ২৪ মে, ২০১৯, ১:৫৬ এএম says : 0
    প্রত্যেকটা খেলোয়ারক ধারাবহিক হতে হবে।তারপরই দলকে শক্তিশালী বলা যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • bdinfobiz ২৪ মে, ২০১৯, ১:৫৭ এএম says : 0
    "পাঁচ তারকা" ওরাও এক সময় তরুন বা উদয়মান ছিল। ২০০৭ বিশ্বকাপে তামিম সাকিব ও মুশফিক নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করল। আবার মাহমুদুল্লাহ একটু আড়ালে ছিল কিন্ত সে ২০১৫ বিশ্বকাপে নিজেকে নিয়েগেছে সেরাদের কাতারে। তাই আমারো মনে হয় ২০১৯ এর বিশ্বকাপে এবারো কিছু প্লেয়ার নিজেকে তুলে ধরবে বিশ্বের কাছে। এখনই সময় নিজেকে নতুন উচ্চতায় প্রতিষ্ঠার। সবার জন্য শুভ কামনা রইল। গুড লাক বাংলাদেশ টিম।
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Hafizur Rahman ২৪ মে, ২০১৯, ১:৫৭ এএম says : 0
    আমরাও অপেক্ষায় আছি সেরা খেলাটা দেখার জন্য।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন